বিশ্ববাংলা

গবেষণা আলোড়ন বাংলাদেশী আফজাল সৈয়দ মুন্নার, পেয়েছেন আফ্রিকান ডায়াসপারা এওয়ার্ড

এশিয়া আফ্রিকা সহ তৃতীয় বিশ্বের দারিদ্রতা ও শিক্ষার উপর গবেষণা চালিয়ে আলোড়ন সৃষ্টি করেছেন বৃটেনের মেইনষ্টীম রাজনীতিক ও বাংলাদেশী বংশদ্ভোত শিক্ষক আফজাল সৈয়দ মুন্না।গবেষণা ও কমিউনিটি সেবায় বিশেষ অবদানের জন্যে সম্প্রতি তাঁকে এওয়ার্ড প্রদান করেছে লন্ডনের আফ্রিকান ডায়াসপারা কমিউনিটি,আর এ উপলক্ষে হাউজ অব কমন্সও এক অনাড়ম্বর অনুষ্টানের মাধ্যমে মুন্নাকে সম্মানিত করে।

কে এই আফজাল সৈয়দ মুন্না আর কেনইবা বিদেশীদের মাঝে তাঁকে নিয়ে এতো আগ্রহ?

শুধু গবেষণাই নয় আগামী ব্রিটিশ পার্লামেন্ট নির্বাচনে লিবারেল ডেমক্রেট পার্টি থেকে বাকিং এন্ড ডাগেনহ্যাম আসনে একজন সম্ভ্যাব্য প্রার্থীও আফজাল সৈয়দ মুন্না। এই বাংলাদেশীর প্রচেষ্টায় নিউহ্যাম বার্কিং ও ডাগেনহ্যাম বারায় লিবারেল ডেমক্রেট পার্টি আগের যে কোন সময়ের তুলনায় এখন বেশ শক্তিশালী।আফজাল সৈয়দ মুন্না জানান,  শিক্ষা এবং দারিদ্রতা নিয়ে ১৯৯৮ এর দিকে গবেষণার শুরু হয় যখন তিনি স্নাতক শিক্ষার্থী। বলেন, বর্তমান রাজনীতির অদূরদর্শি পরিকল্পনা,মেধাশুন্য রাজনীতি আর শিক্ষা খাতে বেপরোয়া বাজেট ঘাটতির বিষয়টি তাকে ভয়ঙ্কর রকম ভাবিয়ে তোলে। আর শিক্ষক হিসেবে রাজনীতি শিক্ষা তার প্রতিদিনকার শিক্ষকতার বিষয়বস্তু। এ অবস্থায় প্রতিদিনকার এই রুটি-রুজির বিষয়টাকে একটা পরিপূর্ণ রুপ দেয়ার জন্যই সক্রিয়ভাবে অংশ নেন রাজনীতিতে। আফজাল সৈয়দ মুন্নার জন্ম বাংলাদেশের বরিশাল শহরের এক সম্ভ্রান্ত সৈয়দ পরিবারে। তার পিতা মীর আব্দুল কাদের ছিলেন একজন মুক্তিযোদ্ধা। বরিশাল ‘‘শব্দাবলী’’ গ্রুপ থিয়েটারে একজন শিশু শিল্পি হিসেবে গণমাধ্যমে শুভ সূচনা হয় আফজালের। এরপর একে একে তার চেতনার বিকাশ ঘটে নাটক,কবিতা,বক্তৃতা এবং একজন কমিউনিটি এক্টিভিষ্ট হিসেবেও।আফজাল ২০০৮ সালে উচ্চশিক্ষার জন্যে বৃটেনে যান। ২০১৩ সালে কোয়ালিফাইড টিচার ষ্টেটাস অর্জন,পরের বছর ইউনিভারসিটি অফ অক্সফোর্ড থেকে রিসার্চ ফেলোশিপ আর ২০১৮ সালে হাইয়ার এডুকেশন একাডেমী,ইংল্যান্ড থেকে ফেলোশীপ অর্জন করেন আফজাল। ২০০৮ সালে থেকে বৃটেনের মেইনষ্ট্রীম রাজনীতিতে অংশ গ্রহন করলেও,মুলত ২০১৫ সালে শিক্ষকতার পাশাপাশি রাজনীতিতে পুরোপুরি সক্রিয় হন তিনি। ২০১৭ সালে টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিল ইলেকশনে প্রার্থী নির্বাচনের পাশাপাশি ব্যাপক নির্বাচনী প্রচারনাও চালান আফজাল। ব্যক্তি জীবনে সফলতার পাশপাশি দুর পরবাসে নিজ কর্ম আর মেধা দিয়ে দেশের মুখ উজ্বল করে চলেছেন এই সূর্য সন্তান।

বাংলাটিভি/ সামিউল শাওন

সংশ্লিষ্ট খবর

Close