বিশ্ববাংলা

বাংলাটিভির প্রচেষ্টায় মাতৃভূমিতে ফিরেছে মতিয়ার

পাবনার আতাইকুলা থানার সড়াডাংগী গ্রামের কড়ই তলার রেমিটেন্সযোদ্ধা সামসুর রহমানের ছেলে মতিয়ার। একটু ভালো থাকার স্বপ্নে পাড়ি জমিয়েছিলেন মালয়েশিয়ায়। কিন্তু ভাগ্য তাকে ঠেলে দিয়েছে হাসপাতালে।

দীর্ঘদিন দেশটির সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় পড়েছিলেন। পরিবারের সামর্থ্য না থাকায় দেশেও ফিরতে পারছিলেন না। কারণ বাকী ছিল হাসপাতালের বিল, ট্রাভেল পাস ও টিকিটের টাকা। সবমিলিয়ে প্রায় ৮ হাজার রিংগিত যা বাংলা টাকায় ১ লক্ষ ৭০ হাজার।

গত ১৫ই নভেম্বর রেমিটেন্সযোদ্ধা মতিয়ারের পরিবারের অনুরোধে বাংলাটিভির বিশ্ব বাংলা টিমের সদস্যরা অসুস্থ এই প্রবাসীকে দেশে ফিরিয়ে আনার জন্য বিত্তবানদের প্রতি আকুল আবেদন জানিয়ে ছিল।

আর এতেই সাড়া পরে যায় মালয়েশিয়া প্রবাসী বাঙ্গালীদের মাঝে। স্থানীয় প্রবাসীদের সর্বাত্মক সহায়তায় দীর্ঘ প্রচেষ্টায় অবশেষে মতিয়ারকেও তার মাতৃভূমিতে ফিরিয়ে আনতে সক্ষম হয়েছে বাংলাটিভি।

তবে এই ফিরে আসার পিছনে রয়েছে অন্য রকম এক ভয়ানক ঘটনা। মতিয়ারের মেয়ে পপি বাংলা টিভিকে জানান,তার বাবা মতিয়ার পূর্বেও একটানা ১২ বছর মালয়েশিয়ায় থেকে অনেকটা হঠাৎ করেই বাংলাদেশে চলে আসেন। দুইবছর দেশে থেকে সংসারের অভাব অনটনের কারণে আবারো দেশ ছাড়তে বাধ্য হয়েছিলেন তিনি।

বিভিন্ন মানুষের কাছ থেকে চড়া সুদে টাকা ধার নিয়ে ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে দালাল মাধ্যমে অন্যের নামে পাসপোর্ট করে টুরিস্ট ভিসায় পাড়ি জমান মালয়েশিয়ায়।

কিছুদিন মোটামুটি ভালই ছিল মালয়েশিয়ায় মতিয়ার। এরপর হঠাৎ করেই চলতি বছরের মার্চ মাসের ২০ তারিখে ফোন আসে পরিবারের কাছে। ফোন ধরতেই কেউ একজন বলে হত্যা করা হবে বাবাকে, মুক্তি চাইলে দিতে হবে ৩ লক্ষ টাকা।

মাহুরতেই আকাশ ভেঙে পড়ে পরিবারটির অভাবের সংসারে। এমনিতেই ঋণের টাকা শোধ করতে না পারার লাঞ্ছনা অন্যদিকে মালয়েশিয়ায় টাকা পাঠানোর চাপ। অনেক চেষ্টা তদবিরের পরও মতিয়ারের জন্য টাকা পাঠাতে পারেনি তার পরিবার। এরপর থেকেই মতিয়ারের সাথে সব রকম যোগাযোগ বন্ধ।

দীর্ঘদিন যোগাযোগ বন্ধ থাকার পর বাংলাটিভিতে দেশের প্রবাসীদের জন্য একমাত্র বিশেষায়িত বিশ্ব বাংলা বুলেটিনে একের পর এর ধারাবাহিক প্রতিবেদন প্রকাশের পর খোঁজ মিলে মতিয়ারের। সেই থেকেই ভর্তি ছিল মেডিকেলের বিছানায়। অতপর প্রবাসী বাঙ্গালীদের চেষ্টায় সন্তানের কাছে এই রেমিটেন্সযোদ্ধা।

বাংলাটিভি/এসএম/এবি

সংশ্লিষ্ট খবর

Close