বিএনপিরাজনীতি

গণমাধ্যমকে নিয়ন্ত্রণের কৌশল করছে সরকার: রিজভী

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন বঞ্চিতরা যে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন তা আমলে নিলেন না বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী আহমেদ। দুপুরে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘এটা বিক্ষোভের কিছু হয়নি। ছোট-খাটো দুয়েকটি প্রতিক্রিয়া, এটা কি নতুন কিছু? এটা তো নতুন নয়। বরং যাদের দেয়া হয়েছে তারা অত্যন্ত জনপ্রিয় এলাকায়। আন্দোলন সংগ্রাম থেকে শুরু করে এলাকার মানুষের কাছে তাদের সম্পৃক্ততা অত্যন্ত নিবিড়। সুতরাং যাদের মনোনয়ন দেয়া হয়েছে তারা প্রাণবন্ত এবং আগামী নির্বাচনে সকল প্রতিকূলতার মুখে তারা লড়ে যাবে।’

রিজভী আরও বলেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে ছাড়া দেশে কোনো সুষ্ঠু ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন হতে পারে না। আসন্ন নির্বাচনে বেগম জিয়াকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে না দেয়ার জন্যই তাকে মিথ্যা ও সাজানো মামলায় কারাগারে আটকে রাখা হয়েছে। রিটার্নিং অফিসাররা আইন বহির্ভূতভাবে, অন্যায়ভাবে বিএনপি চেয়ারপারসনের তিনটি মনোনয়নপত্র বাতিল করেছেন। এটা সরকারের ষড়যন্ত্রেরই অংশ। তিনটি আসনে উনার পক্ষে আপিল করা হয়েছে। আইন তার নিজস্ব গতিতে চললে দেশনেত্রী প্রার্থিতা ফিরে পাবেন। নির্বাচন কমিশনকে বলবো দেশনেত্রী বেগম জিয়ার প্রতি ন্যায়বিচার করুন। ইসি সংবিধান ও আইন অনুসরণ করলে এবং বিতর্কের ঊর্ধ্বে উঠে বিশ্বাসযোগ্য সিদ্ধান্ত নিলে খালেদা জিয়া অবশ্যই প্রার্থিতা ফিরে পাবেন। খালেদা জিয়া ছাড়া নির্বাচন হলে তা হবে একটি বিশাল প্রহসন।’

রিজভী অভিযোগ করেন, নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর থেকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী আরও বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। সারা দেশে গ্রেফতার ও মিথ্যা মামলার হিড়িকে নেতা-কর্মীদের জীবন বিপন্ন ও বিপর্যস্ত। কোনো মামলা ছাড়াই অনেককে গ্রেফতার করা হচ্ছে। নেতা-কর্মীদের বাড়ি বাড়ি তল্লাশি করা হচ্ছে। তাদের এলাকাছাড়া করা হচ্ছে, ভয়ভীতি দেখানো হচ্ছে। গুম-খুন-অপহরণ করা হচ্ছে। এর দায় নিতে হবে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদাকে।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অধ্যাপক সুকোমল বড়ুয়া, নাজমুল হক নান্নু, সহ-দফতর সম্পাদক মুনির হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাটিভি/মাসুদসুমন

সংশ্লিষ্ট খবর

Close

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker