বাংলাদেশ

চাঁদপুরে স্বামী-স্ত্রী ও তাদের দুই শিশুর লাশ উদ্ধার

চাঁদপুর সদর উপজেলায় নিজ বাড়ি থেকে একই পরিবারের চার সদস্যের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। নিহতের মধ্যে রয়েছে ওই পরিবারের স্বামী-স্ত্রী ও দুই শিশু কন্যা। পারিবারিক কলহের জের ধরে দুই সন্তান ও স্ত্রীকে হত্যার পর স্বামী নিজেই আত্মহত্যা করেছেন বলে ধারণা করছে প্রতিবেশীরা।

স্থানীয় বাসিন্দারা ভোরে দেখতে পান বাড়ির পুকুরে ভাসছে নারীর লাশ, বাড়ির বিছানায় ওই নারীর দুই শিশুর লাশ আর বাড়ির আড়ায় ঝুলছে ওই নারীর স্বামীর লাশ। পরে প্রতিবেশীরা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ এসে  মরদেহ উদ্ধার।

আজ সোমবার ভোরে সদর উপজেলার রামপুর ইউনিয়নের দেবপুর এলাকার একটি বাড়ি থেকে ওই চারজনের লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহত চারজন হলেন মাইনুদ্দিন সরদার (৩০), তাঁর স্ত্রী ফাতেমা বেগম (২৪) এবং ওই দম্পতির দুই শিশু মিথিলা (৫) ও সিয়াম (২)।

জানা যায়, নিহত মাইনুদ্দীন চট্টগ্রামে একটি বেকারিতে কাজ করতো। তার সঙ্গে সাত বছর আগে ফাতেমা বেগমের বিয়ে হয়। বিয়ের কিছু দিন পর থেকে তাঁদের মধ্যে কলহ শুরু হয়। এরই জের ধরে এই ঘটনা ঘটেছে বলে দাবি ফাতেমার পরিবারের।

রামপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আল মামুন জানান, নিহত মাইনুদ্দিনের সরদারের ফেসবুক স্ট্যাটাস থেকে জানা যায় গত দুই দিন আগে মাইনুদ্দিন  স্ত্রীকে বাবার বাড়ি থেকে নিজ বাড়ি নিয়ে আসেন। আজ ভোর রাত ৫টায় প্রথমে স্ত্রী ফাতেমা বেগকে হত্যা করে পুকুরে ফেলে দেন। পরে মেয়ে মিথিলা ও ছেলে সিয়ামকে হত্যা করে ঘরের বিছানায় ফেলে রাখে। পরে মাইনুদ্দিন সরদার নিজে ঘরের আড়ার সঙ্গে ফাঁসি দিয়ে আত্মহত্যা করেন। এই চাঞ্চল্যকর ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে।

চাঁদপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ( তদন্ত) হারুন অর রশীদ জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশের একটি তদন্ত দল কাজ করছে। তদন্তের ঘটনার আসল রহস্য জানা যাবে।

বাংলাটিভি/এমআরকে

সংশ্লিষ্ট খবর

Close

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker