আন্তর্জাতিকইউরোপস্লাইডার

লিবিয়ায় অভিবাসী কেন্দ্রে বিমান হামলা, নিহত ৪০ !

লিবিয়ার ত্রিপলিতে একটি অভিবাসী আটক কেন্দ্রে বিমান হামলায় অন্তত ৪০ জন নিহত হয়েছেন।  এছাড়া ওই হামলায় আরো ৮০ জন আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন  ত্রিপোলির কর্মকর্তারা। স্থানীয় সময় বুধবার লিবিয়ার রাজধানী  ত্রিপোলির পূর্বাঞ্চলে এই ঘটনা ঘটে।

বিবিসির তথ্যমতে, মঙ্গলবার শেষ রাতে রাজধানী ত্রিপোলির পূবাঞ্চলীয় তাজৌরা এলাকায় ওই হামলার ঘটনা ঘটে। নিহতদের অধিকাংশ আফ্রিকার অভিবাসন প্রত্যাশী।

লিবিয়ার জরুরি বিভাগের মুখপাত্র ওসামা আলী এএফপিকে জানিয়েছেন, অভিবাসী কেন্দ্রে ১২০ জন অভিবাসন প্রত্যাশী ছিল। ওই কেন্দ্রে সরাসরি বিমান হামলার ঘটনা ঘটে। নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে জানান তিনি।

এদিকে এ হামলার জন্য প্রাক্তন জেনারেল খলিফা হাফতারের নেতৃত্বাধীন স্বঘোষিত লিবিয়ান ন্যাশনাল আর্মিকে (এলএনএ) দায়ী করেছে লিবিয়ার জাতিসংঘ সমর্থিত জাতীয় ঐক্যমতের সরকার (জিএনএ) ।

উল্লেখ্য, তাজৌরা এলাকায় জিএনএ’র অনুগত বাহিনীর সঙ্গে এলএনএ’র লড়াই চলে আসছে। জিএনএ বাহিনীর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে লক্ষ্যবস্তুতে ব্যাপক বিমান হামলা করা হবে বলে এলএনএ সোমবার ঘোষণা করেছিল। কিন্তু এলএনএ-র এক মুখপাত্র অভিবাসী কেন্দ্রে তাদের হামলা চালানোর কথা অস্বীকার করেছেন।

প্রসঙ্গত, সাম্প্রতিক বছরগুলোতে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে অভিবাসন প্রত্যাশীদের ইউরোপে যাওয়ার প্রধান রুটে পরিণত হয়েছে লিবিয়া। এখানে হাজার হাজার ইউরোপে গমন প্রত্যাশীকে আটক করে এ ধরনের অভিবাসী কেন্দ্রে রাখা হয়।

২০১১ সালে দেশটির সাবেক শাসক মুয়াম্মার গাদ্দাফিকে ক্ষমতাচ্যুত করে হত্যার পর থেকে লিবিয়ায় সহিংসতা বিরাজ করছে এবং দেশটি প্রতিদ্বন্দ্বী সরকার ও বাহিনীগুলোর মধ্যে বিভক্ত হয়ে আছে।

ত্রিপলির ওই হামলায় ব্যাপক হতাহতের ঘটনায় জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থা গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। ঘটনাস্থল থেকে সংস্থার কর্মকর্তা ডা. খালিদ বিন আতিয়া বিবিসিকে বলেন, অভিবাসী কেন্দ্রটি ধ্বংস হয়ে গেছে। হতাহত লোকজন ছড়িয়ে চিটিয়ে পড়ে আছে। আহত অনেকে কান্নাকাটি করছেন। এটি একটি ভয়ংকর দৃশ্য।

 বাংলা টিভি/ শাহেল মাহমুদ

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close