দেশবাংলা

অবাধে বিক্রি হচ্ছে এ্যান্টিব্যয়েটিক ও যৌন ঔষধ

রেজাউল করিম, জয়পুরহাট : সরকারি নিয়ম নীতিকে তোয়াক্কা না করে জয়পুরহাটে হাট-বাজার ও পথে-ঘাটে অবাধে বিক্রি হচ্ছে নানা ধরনের ট্যাবলেট ও এ্যান্টিব্যয়েটিকসহ যৌন উত্তেজক ঔষধ। ফুটপাতে মাইকিংয়ের মাধ্যমে অসাধু ব্যবসায়ীরা নাম সর্বস্ব কোম্পানীর নিম্নমানের ঔষধ বিক্রি করা হচ্ছে।

এসব ঔষধ কিনে একদিকে প্রতারিত হচ্ছে গ্রামের সহজ সরল মানুষ। অন্যদিকে, স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে পড়ছেন তারা। প্রশাসনের পদক্ষেপ না থাকায় ক্ষুদ্ধ স্থানীয়র সচেতন মহল। তবে জেলা ড্রাগ সুপার বলছেন, নিয়মিত হাট-বাজারগুলোতে অবৈধ ঔষধ জব্দ করে আইনের আওতায় আনা হচ্ছে।

ঔষধ প্রশাসনের নিয়ম অনুযায়ী ড্রাগ লাইসেন্স ও সাইনবোর্ড ছাড়া ঔষধের ব্যবসা পরিচালনা করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ। নির্দিষ্ট তাপমাত্রা, শুষ্ক ও রোদ মুক্তস্থানে ঔষধ সংরক্ষণ করতে হবে। কিন্তু তা মানছেন না জয়পুরহাটের তিলকপুরসহ বিভিন্ন উপজেলার হাট-বাজার,পথে-ঘাটে ও ফুটপাতের ছোট ছোট ঔষধ ব্যবসায়ীরা।

এছাড়া বিভিন্ন হাটে বাজারে মজমা বসিয়েও চিকিৎসা দিচ্ছেন তারা। প্রকাশ্যে নগ্ন ছবি ও মাইক বাজিয়ে বিভিন্ন এ্যান্টিব্যয়েটিক, যৌন উত্তেজক ঔষধসহ নানা ধরনের ঔষধ বিক্রি করা হচ্ছে। এসব কম দামে ও নিম্নমানের ভেজাল ঔষধ কিনে স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে পড়ছেন সাধারণ মানুষ।

এদিকে, ফুটপাতে ঔষধ বিক্রি করার নিয়ম না থাকার কথা স্বীকার করে পেটের দায়ে তারা এ ব্যবসা করছেন বলে জানান, এক বিক্রেতারা হাবিবুল্লাহ।

নিয়মিত হাট-বাজারগুলোতে অবৈধ ঔষধ জব্দ করার পাশাপাশি বিক্রেতাদের আইনের আওতায় আনা হচ্ছে বলে জানান, জেলা ঔষধ প্রশাসনের  ঔষধ তত্ত্বাবধায়ক কর্মকর্তা রাজীব দাস। তিনি বলেন, আমাদেরা অভিযান অব্যাহত আছে এবং থাকবে।

জীবন নাশকারী নিম্নমানের ঔষধ হাট-বাজার,পথে-ঘাটে ও ফুটপাতের যেখানে সেখানে বিক্রি বন্ধ করে স্বাস্থ্য ঝুঁকি থেকে রক্ষা করতে প্রশাসন দ্রুত পদক্ষেপ নিবেন এমন আশা করছেন স্থানীয়রা।

বাংলাটিভি/ এসনূর

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close