বিশ্ববাংলা

সৌদিতে নির্যাতনের শিকার বাংলাদেশির মৃত্যু

পারিবারিক স্বচ্ছলতার তাগিদে সৌদি আরব গিয়ে নির্যাতনের শিকার হয়ে মারা গেলেন মানিকগঞ্জের নাজমা বেগম। মৃত্যুর এক মাস পার হলেও তার মরদেহ দেশে আনতে পারছে না পরিবারের সদস্যরা। এমতাবস্থায় লাশটি দেশে এনে প্রিয়জনের মুখটি শেষবারের মতো দেখার সুযোগ করে দিতে সরকারের সহযোগীতা চেয়েছেন নাজমার স্বজনরা।

আর্থিক সচ্ছলতা ফেরাতে স্থানীয় দালাল সিদ্দিকের মাধ্যমে প্রায় দুই লাখ টাকা দিয়ে ১০ মাস আগে সৌদি আরব পাড়ি জমান মানিকগঞ্জের নাজমা বেগম।

কোম্পানী ভিসার নামে প্রায় দুই লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়ে দেশটিতে বাসা বাড়ির কাজ দেয় দালাল সিদ্দিক। এরপর থেকেই দিনের পর দিন নাজমার উপর চালানো হয় শারীরিক নির্যাতন। টেলিফোনে স্বজনদের কাছে বার বার বাঁচার আকুতি জানালেও শেষ রক্ষা হয়নি এই বাংলাদেশি নারীর।

গত ২ সেপ্টেম্বর দেশটিতে গৃহকর্তার নির্যাতনে মৃত্য হয় নাজমার। মৃত্যুর এক মাস পার হলেও, তার মরদেহ দেশে আনতে পারছে না পরিবারের সদস্যরা। এমতাবস্থায় লাশটি দেশে এনে প্রিয়জনের মুখটি শেষবারের মতো দেখার সুযোগ করে দিতে সরকারের সহযোগীতা চেয়েছেন নাজমার স্বজনরা।

অন্যদিকে, নাজমা বেগমের  লাশটি দেশে আনতে সবধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকতা রাহেলা রহমত উল্লাহ।

মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার ইসলামনগর গ্রামের নাজমা বেগমের নিথর মরদেহটি বর্তমানে সৌদি আরবের আমির হাসপাতালের হিমঘরে পড়ে রয়েছে।

রেজাউল করিম, সিংগাইর প্রতিনিধি 

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close