অন্যান্যবাংলাদেশ

বেসরকারি পর্যায়ে করোনা পরীক্ষার তাগিদ বিশেষজ্ঞদের

বেসরকারি পর্যায়ে করোনা পরীক্ষা উন্মুক্ত না করলে দেশের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ কঠিন হয়ে পড়বে বলে আশঙ্কা জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। এমন পরিস্থিতিতে, বেসরকারি হাসপাতালগুলোতে পরীক্ষার অনুমতি দেয়ার দাবি জানিয়েছেন, বেসরকারি মেডিকেল কলেজ এসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট ডাক্তার মোবিন।

এদিকে, আইইডিসিআর বলছে, প্রক্রিয়া চলছে দ্রুত সময়ের মধ্যেই বেসরকারিভাবে করোনা পরীক্ষার অনুমতি দেয়া হবে।

সারা বিশ্বের সাথে পাল্লা দিয়ে দেশেও বাড়ছে করোনায় আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। বিগত ৮ মার্চ প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হওয়ার পর গ্যাল ২ মাসে সারাদেশে মাত্র ১ লাখ ৪০ হাজারের মত নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে; বিশেষজ্ঞদের বিবেচনায় যা অত্যন্ত কম। এ কাজে ব্যবহৃত হয়েছে ৩৩টি সরকারি ল্যাব।

জানতে চাইলে, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বেঁধে দেয়া নিয়মের বাইরে কাউকে করোনা পরীক্ষার অনুমতি দেয়ার বিধান নেই বলে জানালেন, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের সভাপতি ডাঃ ইকবাল আর্সলান। অথচ উন্নত বিশ্বে প্রতিদিন লক্ষাধিক মানুষের নমুনা পরীক্ষা হচ্ছে- জানিয়ে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনা সংক্রমণের গতি–প্রকৃতি বুঝতে এবং আক্রান্ত মানুষকে সেবা দিতে দৈনিক কমপক্ষে ৩০ হাজার নমুনা পরীক্ষা দরকার।

বাংলাদেশের মোট জনসংখ্যার ৬৫ থেকে ৭০ শতাংশ মানুষ চিকিৎসা সেবা নিয়ে থাকে বেসরকারি নানা হাসপাতালে। তার পরেও এই মহামারি করোনা পরীক্ষার জন্য তাদেরকে উপেক্ষা করা হচ্ছে- মন্তব্য ক’রে, জনস্বার্থেই বেসরকারি হাসপাতালকে অনুমতি দেয়ার দাবি জানিয়েছে বেসরকারি মেডিকেল কলেজ এসোসিয়েশন।

অন্যদিকে, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বেসরকারি হাসপাতাল শাখার পরিচালক আমিনুল হাসান টেলিফোনে জানিয়েছেন, দ্রুততম সময়ের মধ্যেই বেসরকারিভাবে করোনার নমুনা পরীক্ষা উন্মুক্ত করা হবে। মহামারি করোনা প্রতিরোধে বেসরকারি পর্যায়ে পরীক্ষা উন্মুক্ত হলে, আগামী কয়েক সপ্তাহেই রোগীর সংখ্যা কমে আসবে বলেও মনে করছেন চিকিৎসা বিজ্ঞানীরা।

বুলবুল আহমেদ, বাংলা টিভি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close