আন্তর্জাতিকএশিয়া

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এ নিয়ে তৃতীয়বারের মতো পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী হলেন তিনি।আজ সকালে  পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল ভবনে তার শপথগ্রহণ হয়। শপথ নেয়ার পরই পশ্চিমবঙ্গে কোভিড পরিস্থিতি মোকাবেলায় কাজ করার কথা জানান তিনি।

বিজেপির বিরুদ্ধে বিশাল ব্যবধানে জয়ের পর তৃতীয়বারের মতো পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আজ বুধবার বেলা ১১টার দিকে পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপালের দাপ্তরিক ভবন রাজভবনের ঐতিহাসিক থ্রোন কক্ষে শপথ নেন তিনি।

 মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে শপথবাক্য পাঠ করান রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। প্রোটেম স্পিকার হিসেবে শপথ নেন প্রবীণতম সদস্য সুব্রত মুখোপাধ্যায়ও।

 তবে করোনার কারণে শপথগ্রহণ অনুষ্ঠান ছিল অনাড়ম্বর ও সংক্ষিপ্ত। উপস্থিত ছিলেন মাত্র ২০-২৫ জনের মতো। একাধিক বিরোধীদলীয় নেতাদের উপস্থিত থাকার কথা থাকলেও ছিলেন না অনেকেই। আমন্ত্রণ জানানো হলেও উপস্থিত ছিলেন না ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলী। আর অসুস্থতার কারণে আসতে পারেননি সাবেক মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য।

 শপথ নেওয়ার পরপরই মমতা জানালেন,তাঁর প্রথম কাজ হবে রাজ্যের কোভিড পরিস্থিতি মোকাবিলা করা। পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভায় ২১৩ আসন পেয়ে তৃতীয়বারের জন্য সরকার গঠন করল মমতা বন্দোপাধ্যায়ের দল তৃণমূল কংগ্রেস। গোটা দেশ দেখলো মোদীবিরোধী মুখ আর কেউ নয়, একমাত্র মমতা বন্দোপাধ্যায়। যার প্রভাব পড়বে ভারতে জাতীয় রাজনীতিতে।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রথম মুখ্যমন্ত্রী,যিনি নির্বাচনে নিজের আসনে পরাজিত হওয়ার পর এ পদে বসছেন। সংবিধান অনুযায়ী মমতাকে আগামী ছয় মাসের মধ্যে রাজ্যের কোনো একটি আসনে জয়ী হয়ে আসতে হবে বিধানসভায়।

খুবই সাধারণ জীবন যাপনে অভ্যস্ত মমতার রাজনীতিতে হাতেখড়ি হয় কলেজ পড়ার সময় থেকেই।দীর্ঘ সময় ছিলেন কংগ্রেসের গুরুত্বপূর্ণ পদে।পাশাপাশি কেন্দ্র সরকারের মন্ত্রী হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন।পরবর্তীতে কংগ্রেস ছেড়ে গঠন করেন সর্ব ভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেস। মূলত: তার হাত ধরেই পশ্চিমবঙ্গে দীর্ঘনের বাম শাসনের অবসান হয়।

 বাংলাটিভি/শহীদ

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button