fbpx
বাংলাদেশআওয়ামী লীগরাজনীতিসরকার

বিতর্কিত ব্যক্তিদের দলে কোন স্থান নেই : কাদের

KSRM

জুন মাসে পদ্মা সেতুর উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী।এরপর দৌলতদিয়ায় ট্যানেল অথবা দ্বিতীয় পদ্মা সেতু নির্মানের বিষয়ে চিন্তা করা হবে বলে জানিয়েছেন, আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

 দুপুরে ফরিদপুর জেলা আওয়ামীলীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন ভার্চুয়ালী উদ্বোধনকালে তিনি এসব কথা বলেন। সেতুমন্ত্রী বলেন,ফরিদপুরের আওয়ামীলীগের যেসব নেতারা হাজার হাজার কোটি টাকা লুটে পাচার করে আওয়ামীলীগকে কলঙ্কিত করেছে, তাদের দোসরদের চিহ্নিত করে আগামীতে নেতৃত্বে রাখা যাবেনা বলে হুশিয়ারী দেয়ার পাশাপাশি নতুন কমিটিতে ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ন করা হবে বলেও উল্লেখ করেন।

 জনগণ মনে করে—আন্দোলন ও নির্বাচনে ব্যর্থতার দায়ে মির্জা ফখরুলসহ বিএনপির টপ টু বটম নেতাদের পদত্যাগ করা উচিত।’

আওয়ামী লীগ করে যারা কোটি কোটি টাকা বিদেশে পাচার করে, তাদের চিহ্নিত করার আহ্বান জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘চিহ্নিত সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, মাদক ব্যবসায়ী, অবৈধ অর্থ পাচারকারীদের কোনোভাবেই দলে রাখা যাবে না।

ত্যাগী নেতাকর্মীদের দলে মূল্যায়ন করতে হবে, বসন্তের কোকিলেরা দুঃসময়ে থাকবে না’ উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘সুবিধাভোগীদের দুঃসময়ে হাজার পাওয়ারের বাতি জ্বালিয়ে খুঁজে পাওয়া যাবে না।

গত ১৩ বছরের বাংলাদেশের সঙ্গে বর্তমান বাংলাদেশের তুলনা করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এত উন্নয়ন-অর্জন শুধু বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আছেন বলেই সম্ভব হয়েছে।

দেশের এতসব উন্নয়ন অর্জন বিএনপি চোখে দেখে না, তারা দিনের আলোয় রাতের অন্ধকার দেখতে পায়, দেশের গণতন্ত্র, মুক্তিযুদ্ধ তথা বাংলাদেশকে বাঁচাতে হলে আওয়ামী লীগকে বাঁচাতে হবে’ এমন বক্তব্য দিয়ে ওবায়দুল কাদের দলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশে আরও বলেন, ‘দেশের চলমান উন্নয়ন-অর্জন ধরে রাখতে হলে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আগামী সময়েও আওয়ামী লীগকে ক্ষমতা রাখতে হবে।

আগামী জাতীয় নির্বাচন ও আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলনকে সামনে রেখে এখন থেকেই দলকে সুসংগঠিত ও স্মার্ট হিসেবে গড়ে তুলতে হবে’—এমনটি জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘শেখ হাসিনার নেতৃত্বে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে হবে।

বিএনপির শাসনামলে দেশে ২৪ ঘণ্টাই লোডশেডিং ছিল’ উল্লেখ করে বিএনপি নেতাদের উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বর্তমান বাংলাদেশ শেখ হাসিনা সারা দেশে আলোয় আলোকিত করেছেন। বিএনপি নেতারা চোখে ঠুলি পড়েছে।’

বিএনপির মহাসচিবের উদ্দেশে বলেন, ‘হুংকার দিয়ে লাভ নেই, দেশের জনগণকে দেখানোর মতো আপনাদের এমন কোনো উন্নয়ন নেই। তাই, সরকারের পদত্যাগ দাবি না করে নিজেরা পদত্যাগ করুন।’

ফরিদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুবল চন্দ্র সাহার সভাপতিত্বে সম্মেলনে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কাজী জাফরউল্লাহ, লে. কর্নেল (অব.) ফারুক খান, ড. আবদুর রাজ্জাক, শাহজাহান খান, জাহাঙ্গীর কবির নানক, আবদুর রহমান, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দীন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম, এসএম কামাল হোসেন, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ এবং ফরিদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মাসুদ হোসেনসহ অন্যান্য কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাটিভি/শহীদ

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button