ক্রিকেটখেলাধুলা

দিন শেষে ব্যাটে-বলে দারুণ লড়াই দুই দলের

বাংলাদেশ ও জিম্বাবুয়ে সিরিজের মধ্যে সিলেটে দুই ম্যাচের প্রথম টেস্টের

প্রথম দিন শেষে ব্যাটে-বলের দারুণ লড়াই দেখা গেল । সফরকারীদের দিন শেষে স্কোর বোর্ডে রান ২৩৬।

এ রানে প্রতিপক্ষের ৫ উইকেট শিকার করেছে বাংলাদেশ। ফলে বড় স্কোর গড়ার সুযোগ আছে সফরকারীদের।

বাকিটা নির্ভর করছে টেলএন্ডারদের ওপর।
শনিবার সকালে সিরিজের প্রথম টেস্ট টসে জিতে ব্যাটিং বেছে নেয় জিম্বাবুয়ে।

তবে শুরুটা একেবারে খারাপ হয়নি ওয়ানডেতে ধবলধোলই হওয়া মাসাকাদজাদের।
এদিন খেলা হয়েছে মোট ৯১ ওভার। তিন সেশনই সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয়েছে।

সব মিলিয়ে দিন শেষে দুই দলই সমানে সমান।
প্রথমে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা শুভ করতে আপ্রাণ চেষ্টা করে জিম্বাবুয়ে।

ব্রায়ান চারিকে নিয়ে শুভসূচনার চেষ্টা করেন হ্যামিল্টন মাসাকাদজা।

তবে তাদের পথে বাধা হয়ে দাঁড়ান তাইজুল ইসলাম। চারিকে সরাসরি বোল্ড করে বাংলাদেশকে

প্রথম সাফল্য এনে দেন তিনি। দ্বিতীয় সাফল্য পেতেও বিলম্ব হয়নি টাইগারদের।

আবারো শিকারী সেই তাইজুল। দুর্দান্ত ডেলিভারিতে অভিজ্ঞ ব্রেন্ডন টেইলরকে শর্ট লেগে নাজমুল হোসেন শান্তর তালুবন্দি করে ফেরান তিনি।
চারি ও টেইলর দ্রুত ফিরলেও একপ্রান্ত আগলে থেকে যান মাসাকাদজা।

এরপর শন উইলিয়ামসকে নিয়ে দলকে টেনে তোলার চেষ্টা করেন অধিনায়ক মাসাকাদজা।

দলীয় ৮৫ রানে ভয়ংকর হয়ে উঠা হ্যামিল্টন মাসাকাদজাকে (৫২) সাজঘর পাঠান আবু জয়েদ রাহী।

এরপর প্রতিরোধ গড়ে তোলেন জিম্বাবুয়ের মিডল অর্ডারের দুই তারকা শন উইলিয়ামস ও সিকান্দার রাজা।

তবে তাদের সেই জুটি বড় হতে দিলেন না অভিষিক্ত নাজমুল ইসলাম অপু।

দলীয় ১২৯ রানে রাজাকে সরাসরি বোল্ড করে সাজঘরে পাঠিয়েছেন এই স্পিনার।
এতে চাপে পড়ে জিম্বাবুয়ে। তবে সেই চাপ আমলে না নিয়ে উইলিয়ামসকে যথার্থ সঙ্গ দেয়ার চেষ্টা করেন সিকান্দার রাজা। কিন্তু তার যাত্রাটা দীর্ঘায়িত হয়নি।

তাকে ছোবল মারেন নাজমুল ইসলাম অপু। তাতে নীল হয়ে সাজঘরে ফেরেন পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত এ ক্রিকেটার।

ফের সেই চিরচেনা দৃশ্যের অবতারণা। রাজা শিকার করেই নাগিন ড্যান্স দেন অপু।

তাতে শামিল হন সতীর্থরা। উল্লাসে ফেটে পড়েন গ্যালারির দর্শকরা।
প্রথমদিকে রান তোলার পথটা দেখিয়েছিলেন হ্যামিল্টন মাসাকাদজা।

কিন্তু ফিফটি করেই ফেরেন তিনি। পরে তার দেখানো পথ ধরে সেঞ্চুরির দিকে হাঁটছিলেন শন উইলিয়ামস।

দারুণ খেলছিলেন তিনি। তবে শেষ পর্যন্ত হার মানেন বাঁহাতি ব্যাটারও।

তিন অংকের ম্যাজিক ফিগার ছোঁয়া থেকে মাত্র ১২ রান দূরে থাকতে আউট হন তিনি।

পার্টটাইমার মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের বলে স্লিপে নাজমুল হোসেনকে ক্যাচ দিয়ে ফেরার আগে ১৭৩ বলে ৯ চারে ৮৮ রানের লড়াকু ইনিংস খেলেন উইলিয়ামস।

তিনি ফিরলেও বড় স্কোরের ভিত যায় জিম্বাবুয়ে।
দেশের অষ্টম এবং বিশ্বের ১১৬তম ভেন্যু হিসেবে টেস্ট অভিষেক হয়েছে সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের।

এ উপলক্ষে পাঁচ মিনিট ঘণ্টা বাজিয়ে শুরু হয় খেলা। ঘণ্টা বাজান বাংলাদেশ সাবেক অধিনায়ক আকরাম খান।

ঐতিহ্যের ধারক এ ঘণ্টা বাজানোর সঙ্গে সঙ্গে মাঠে গড়ায় খেলা। ঘণ্টাধ্বনিতে উৎসবে মাতে ১৮ হাজার দর্শক।
ভেন্যুর অভিষেক স্মরণীয় করে রাখতে বিশেষ স্মারক মুদ্রায় টস করেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

তবে ভাগ্যকে পাশে পাননি তিনি। জেতেন জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক হ্যামিল্টন মাসাকাদজা।

টস জিতে আগে ব্যাটিং নেন তিনি। খেলা শুরু হয় বেলা ১০টায়।
একদিকে টিলা, আরেকদিকে চায়ের বাগান, মাঝখানে দৃষ্টিনন্দন স্টেডিয়াম।

নয়নাভিরাম এ মাঠে টাইগারদের হয়ে অভিষেক হয়েছে পেস অলরাউন্ডার আরিফুল হক

এবং বাঁহাতি স্পিনার নাজমুল ইসলাম অপুর। জিম্বাবুয়ের হয়ে অভিষেক হয়েছে ব্রেন্ডন মাভুতা এবং বাঁহাতি স্পিনার ওয়েলিংটন মাসাকাদজার।

সংশ্লিষ্ট খবর

Close

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker