Uncategorizedঐক্যফ্রন্টরাজনীতি

নির্বাচনে অংশ নেয়া নিয়ে সংশয় ২০ দলের, চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত পরবর্তী বৈঠকে

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মনোনয়নপত্র বাছাইয়ে জোটের অনেকের মনোনয়নপত্র বাতিল হওয়ায় নির্বাচনে টিকে থাকা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট।

বাছাইতে জোটের ৮০ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল করে সরকারি দলের জয়লাভকে এগিয়ে রাখা হয়েছে বলেও অভিযোগ করেছে ২০ দলীয় জোট। গতকাল রোববার জোটের বৈঠকের পর প্রধান সমন্বয়ক অলি আহমেদ এরকম অভিযোগ করেন।

প্রার্থিতা বাছাইয়ের পর গতকাল রাতে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে বৈঠক শেষে জোটের শরিক দল এলডিপি সভাপতি কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বলেন, শুধু ২০ দলীয় জোটেরই ৮০ জন জনপ্রিয় প্রার্থীর মনোনয়নপত্র ত্রুটিপূর্ণ বলে বাতিল করেছে নির্বাচন কমিশন। কোনো কোনো আসনে দুজন এবং তিনজন প্রার্থীর মনোনয়নপত্রও বাতিল করা হয়েছে। জনপ্রিয় ও গুরুত্বপূর্ণ এসব প্রার্থীকে বাদ রেখে নির্বাচনে অংশ নেয়াটা কতটা যৌক্তিক হবে সেটি বিবেচনাধীন।

মূলত নির্বাচনের কর্মপরিকল্পনা নির্ধারণ করার জন্যই আনুষ্ঠানিকভাবে এ বৈঠকে অংশ নেন ২০ দলের প্রতিনিধিরা। কিন্তু সকাল থেকে নির্বাচন কমিশনের প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র বাছাই প্রক্রিয়া শুরু হওয়া ও হেভিওয়েট প্রার্থীসহ জোটের বিপুল সংখ্যক প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল হওয়ার পর এটি নিয়েই পুরো বৈঠকে আলোচনা হয়।

আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নেয়া নিয়ে সংশয় প্রকাশ করে তিনি বলেন, এ অবস্থা চলতে থাকলে ২০ দল শেষ পর্যন্ত নির্বাচনে টিকে না-ও থাকতে পারে। চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানা যাবে ২০ দলের পরবর্তী বৈঠকের পর। পরবর্তী বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হবে আগামী বুধবার। সেদিনই নির্বাচনে অংশ নেয়া বা না নেয়ার বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানানো হবে।

বৈঠকে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, জামায়াত নেতা মাওলানা আবদুল হালিম, জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের ঢাকা মহানগরের সভাপতি মাওলানা নূর হোসেন কাশেমী, জাগপার তাসমিয়া প্রধান, মুসলিম লীগের এইচএম কামরুজ্জামান, খেলাফত মজলিসের আমির অধ্যক্ষ মুহম্মদ ইসহাক।

বাংলাটিভি/এমআরকে

সংশ্লিষ্ট খবর

Close