অন্যান্যরাজনীতি

নির্বাচন কমিশন সরকারের নয়, রাষ্ট্রপতির- বি. চৌধুরী

নির্বাচন কমিশন নিয়ে বি. চৌধুরীর মন্তব্য, “নির্বাচন কমিশন সরকারের নয়, রাষ্ট্রপতির”

‘নির্বাচন কমিশন এখন আর সরকারের নয়, রাষ্ট্রপতির অধীনে। সুতরাং অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানে কমিশন সাহসী পদক্ষেপ গ্রহণ করবে’ বলে বিকল্পধারা বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট ও যুক্তফ্রন্ট চেয়ারম্যান সাবেক রাষ্ট্রপতি অধ্যাপক এ.কিউ.এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী আশা প্রকাশ করেন।

শুক্রবার (৯ নভেম্বর) বিকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ জন দল (বিজেডি) আয়োজিত এক স্মরণসভায় তিনি একথা বলেন। তিনি নির্বাচনের তারিখ এক সপ্তাহ পিছিয়ে দেওয়ার দাবি পুনর্ব্যক্ত করে  ভোটগ্রহণ ২৩ ডিসেম্বরের পরিবর্তে ৩০ ডিসেম্বর, মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার তারিখ এক সপ্তাহ পিছিয়ে ১৯ নভেম্বরের পরিবর্তে ২৬ নভেম্বর, মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই ২২ নভেম্বরের পরিবর্তে ২৯ নভেম্বর এবং মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার ২৯ নভেম্বরের পরিবর্তে ৬ ডিসেম্বর করার জন্য নির্বাচন কমিশনের প্রতি আহ্বান জানান।

বি. চৌধুরী বলেন, ‘সংবিধানের বাইরে গেলে কমিশন এবং রাষ্ট্রপতি ইতিহাসে দায়ী হয়ে থাকবেন। ৫ বছর পর পর জাতীয় নির্বাচন হয়।

এত তাড়াহুড়ো করার দরকার নেই। সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে নির্বাচন করুন।

আশা করি, আমাদের এই আহ্বানের কথা স্মরণ থাকবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘সংসদ ভেঙে দিন অথবা সংসদ সদস্যদের নিষ্ক্রিয় করুন। সবার জন্য লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড দিতে হবে; উচু-নিচু মাঠে

খেলা হয় না। নির্বাচনের সময় গোণ্ডগোল হলে পুলিশ দাঁড়িয়ে থাকে, এবারের নির্বাচনে এমন করলে তাৎক্ষণিকভাবে তাদের বিচার করতে

হবে। নির্বাচনে সেনাবাহিনী ও বিজিবি মোতায়েন করতে হবে। অতীতে দেখা গেছে, পোলিং এজেন্টদের বুথ থেকে-

বের করে দেওয়া হয় অথবা গ্রেফতার করা হয়। এটা যেন এ নির্বাচনে না হয়।’

বিজেডি উপদেষ্টা এআর চৌধুরীর স্মরণসভায় সভাপতিত্ব করেন দলটির চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান জয় চৌধুরী। বক্তৃতা করেন–

বিজেডির নির্বাহী চেয়ারম্যান আতিকুল ইসলাম, বিজেডি মহাসচিব সেলিম আহম্মেদ, ভাইস-চেয়রম্যান ক্যাপ্টেন (অব.) রফিক

আহাম্মেদ, বিকল্পধারার প্রেসিডিয়াম সদস্য আবদুর রউফ মান্নান, ইঞ্জিনিয়ার মুহম্মদ ইউসুফ,

বিকল্পধারার সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিস্টার ওমর ফারুক প্রমুখ।

বাংলাটিভি/এসএম/এবি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button