বিএনপিরাজনীতি

তফসিলের পর ৫৫ মামলায় ৫২৯ নেতা-কর্মী গ্রেফতার

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর ৫৫ মামলায় ৫ মনোনয়ন প্রত্যাশীসহ ৫২৯ নেতা-কর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে জানিয়ে ইসিতে অভিযোগ করেছে বিএনপি।

বুধবার (২১ নভেম্বর) নির্বাচন কমিশনকে (ইসি) পাঠানো এক চিঠিতে এই অভিযোগ জানিয়েছে বিএনপি। দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সই করা চিঠিতে সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের স্বার্থে এসব মামলা প্রত্যাহার ও গ্রেফতার করা বিএনপি নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবি জানানো হয়েছে।

বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের মামলা ও তথ্য সংরক্ষণ কর্মকর্তা মো. সালাহ উদ্দিন খান ইসিতে বিএনপির এই চিঠি ও মামলার তালিকা জমা দেন। প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদার কাছে চিঠিটি দেওয়া হয়।

চিঠিতে উল্লেখ করা হয়, পুলিশের হাতে গ্রেফতার হওয়া দলীয় পাঁচ মনোনয়ন প্রত্যাশী হলেন— বাগেরহাট-৪ আসনের মো. ইব্রাহিম হোসেন; বিএনপির গ্রাম সরকার বিষয়ক সম্পাদক, গাইবান্ধা-২ আসনের মো. আনিসুজ্জামান খান বাবু; ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সহসভাপতি, নেত্রকোনা সদর-২ আসনের মো. আনোয়ারুল হক রয়েল; ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক, ঢাকা-১০ আসনের শেখ রবিউল আলম রবি এবং যশোর জেলা বিএনপির সহসভাপতি, যশোর-৬ আসনের মো. আবু বক্কর আবু।

চিঠিতে বলা হয়, সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন প্রত্যাশী নেতাদেরর গ্রেফতার ও আটক করে রাখছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এ পর্যন্ত মনোনয়ন প্রত্যাশী পাঁচ জনকে আটকের পর কারাগারে পাঠানো হয়েছে। মনোনয়ন প্রত্যাশী একজনকে এখনও খুঁজে পাওয়া যায়নি।

চিঠিতে আরও বলা হয়, বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা ও গ্রেফতার হওয়া নেতাকর্মীদের তালিকা এর আগে দুইবার দলের পক্ষ থেকে ইসিকে দেওয়া হয়েছে। সুনির্দিষ্ট মামলার তালিকা দেওয়ার পরও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বেপরোয়া। কয়েকদিন ধরে বিএনপি নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করে দিনের পর দিন আটক রেখে আদালতে হাজির করা হচ্ছে। আবার কাউকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পরিচয় দিয়ে আটকের পর গুম করে রাখা হচ্ছে। দলের নেতাকর্মীদের বাড়ি বাড়ি চলছে পুলিশি তল্লাশি।

এ সময় তফসিলের পর গ্রেফতার হওয়া নেতাকর্মীদের তালিকাও ইসির কাছে তুলে দেয় বিএনপি। চিঠিতে গ্রেফতার-হুমকি বন্ধ ও মামলা থেকে দলের নেতাকর্মীদের মুক্তির জন্যও বলে বিএনপি।

বাংলাটিভি/এসএম/এবি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close