অন্যান্যআন্তর্জাতিকদেশবাংলাবাংলাদেশবিশ্ববাংলা

নেদারল্যান্ডসের ট্রামে সন্ত্রাসী হামলা

নিউজিল্যান্ডে সন্ত্রাসী হামলার রেশ কাটতে না কাটতেই এবার নেদারল্যান্ডসের উট্রাখ শহরে একটি যাত্রীবাহী ট্রামে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটেছে। এতে অন্তত তিনজন নিহত ও ৯ জন আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে একজনকে আটক করা হয়েছে। স্থানীয় একজন ব্যবসায়ী বিবিসিকে জানিয়েছেন, ওই হামলাকারী তুরস্কের নাগরিক। এটাকে সন্ত্রাসী হামলা হিসেবে আখ্যায়িত করেছে দেশটির পুলিশ।

সংবাদ মাধ্যম বিবিসির অনলাইনে বলা হয়েছে, ৩৭ বছর বয়সী সন্দেহভাজন ওই হামলাকারীর নাম গোকমেন তানিস। হামলার কয়েকঘণ্টা পর তাকে আটক করা হয়। তবে ঠিক কোথা থেকে আটক করা হয়, তা জানা যায়নি। কী উদ্দেশ্যে এই হামলা চালানো হয়েছে তাও পরিষ্কার নয়।

উট্রাখ শহরে হামলার ঘটনাটি ছড়িয়ে যাওয়ার পর, সেখানকার স্কুলগুলো বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। স্থানীয় সময় সোমবার বেলা পৌনে ১১টার দিকে টুয়েন্টি ফোর অক্তোবেরপ্লেইন জংশনের কাছে হামলার ঘটনা ঘটে। একজন প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন, এক ব্যক্তিকে এলোপাতাড়ি গুলি চালাতে দেখা যায়। যাতে অন্তত ৩ জন নিহত ও ৯ জন আহত হন। আহতদের কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

আরেকজন প্রত্যক্ষদর্শী ডাচ পুলিশের সংবাদ মাধ্যম এনওএসকে বলেন, আমি এ ঘটনায় আহত একজনকে চিকিৎসা সেবা দিতে সহযোগিতা করেছি। ওই ব্যক্তি আমার অদূরে ট্রামের পাশেই পড়ে ছিলেন। আমিসহ কয়েকজন তাকে হাসপাতালে নেওয়ার জন্য গাড়িতে উঠায়। এরই মধ্যে লক্ষ করি, বন্দুকধারী আমাদের দিকে এগিয়ে আসছে।

এদিকে, পুনরায় হামলার আশঙ্কায় দেশটিতে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। স্কুলগুলো বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। বিমানবন্দর ও মসজিদে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। ঘটনার পরপরই সন্দেহভাজন ওই হামলাকারীর ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয় পুলিশ। এর মাধ্যমে জনগণকে সতর্ক করা হয়, ওই ব্যক্তির কাছ থেকে দূরে থাকতে। ঘটনার পর কাউন্টার টেরোরিজমের সদস্যরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

ঘটনাটিকে একটি সন্ত্রাসী হামলা হিসেবে আখ্যায়িত করেছে ডাচ পুলিশ। ‍তবে সোমবার সন্ধ্যায় এক সংবাদ সম্মেলনে একজন আইনজীবী বলেন, পারিবারিক কারণে এই হামলার ঘটনা ঘটে থাকতে পারে। হামলাকারীর নাম তানিস বলে চিহ্নিত করছে পুলিশ।

বাংলাটিভি/রাজ

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close