দেশবাংলা

লালমনিরহাটে তিস্তার পানি বিপদসীমার ৫০ সে.মি. উপরে; ভয়াবহ বন্যার আশংকা

টানা বর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে, লালমনিরহাটে তিস্তার পানি বিপদ সীমার ৫০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। পানিবন্দি হয়ে পরেছেন প্রায় ১০ হাজার পরিবার। ভেঙ্গে গেছে এলজিইডির পাকা রাস্তা,পানি উন্নয়ন বোর্ডের বন্যা নিয়ন্ত্রক বাঁধ। অন্যান্য বছরের তুলনায় এবার পানি নেমে যেতে সময় লাগছে। ফলে, ভয়াবহ বন্যার আশংকা করছে স্থানীয়রা। ইতোমধ্যে জেলার প্রায় অর্ধ লক্ষ মানুষ বন্যার কবলে পড়ে চরম ভোগান্তিতে রয়েছেন।

এর আগে শুক্রবার রাতে পানি প্রবাহ ক্রমানয়ে বৃদ্ধি পাওয়ায়, পানি উন্নয়ন বোর্ডের পক্ষ থেকে তিস্তা ব্যারাজ এলাকার ফ্লাড বাইপাসের উভয় তীরের লোকজনকে নিরাপদ আশ্রয়ে সরে যেতে মাইকিং করা হয়।

শুক্রবার রাত থেকেই নদীর পানি দ্রুত বাড়তে থাকে। ফলে, জেলার বিভিন্ন এলাকার নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হয়। তিস্তার পানি বেড়ে হাতীবান্ধা উপজেলার গড্ডিমারী ইউনিয়নের একটি কাঁচা ও পাকা রাস্তা ভেঙ্গে লোকালয়ে পানি ঢুকে পড়ে। এতে উপজেলার নদী তীরবর্তি বিভিন্ন এলাকার মানুষ পানি বন্দি হয়ে পড়েছে।

জেলা প্রশাসন এ পর্যন্ত বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থদের জন্য ১১০ মেট্রিক টন চাল ও নগদ আড়াই লাখ টাকা বরাদ্দ দিয়েছে জানিয়ে, জেলা প্রশাসক বলেন, আশ্রয়কেন্দ্রগুলো খোলা রাখা হয়েছে।

জেলার আদিতমারী উপজেলার মহিষখোচা ইউনিয়নের কয়েকটি গ্রামের পানিবন্দি মানুষের সংখ্যা আরও বেড়েছেকুটিরপাড়ে পানি উন্নয়ন বোর্ডের বন্যা নিয়ন্ত্রক বাঁধ ভেঙ্গে তিস্তার পানি ঢুকে পড়েছে নতুন এলাকায়।

বাংলাটিভি/ রিয়েল

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close