অন্যান্যবাংলাদেশ

স্মৃতির অলিন্দে ঠাঁই নিচ্ছে বাঙ্গালির ঐতিহ্যের চিঠি

হুমায়ুন কবির, পটুয়াখালি : ই-প্রযুক্তির ডানার ঝাপটায় বিপর্যয় নেমে এসেছে ডাক বিভাগে। সেবা নেই গ্রামের পোস্ট অফিসগুলোতে। ক্রমাগতই ছোট হয়ে আসছে ডাক বিভাগের পরিধি। অপাংক্তেয় তুচ্ছ হয়ে পড়েছে এককালের মানুষের প্রাণভোমড়া ডাকঘরগুলো। স্মৃতির অলিন্দে ঠাঁই নিচ্ছে বাঙ্গালির ঐতিহ্যের চিঠি।

বেলা তখন ১২টা পটুয়াখালী সদর উপজেলার কমলাপুর ইউনিয়নের চৌদ্দভূরিয়া পোস্ট অফিসে গিয়ে দেখা যায়নি কোন পোস্ট অফিসের সাইন বোর্ড বা উপস্থিতি। চৌদ্দভূরিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসার একটি কক্ষে নামেমাত্র চলছে পোস্ট অফিসের কার্যক্রম। পরে পটুয়াখালী জেলার বিভিন্ন সাব অফিসগুলো ঘুরে প্রায় একই চিত্র চোখে পরে। দু একটিতে নামমাত্র সাইনবোর্ড থাকলেও নেই কোন কর্মচারীদের উপস্থিতি।

চৌদ্দভূরিয়া ইউনিয়নের এলাকাবাসী জানায়, পোস্ট মাস্টার মাওঃ মোঃ শফিকুল ইসলাম হলেও দায়ীত্ব পালন করছেন তার স্ত্রী রেহেনা বেগম। এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি ক্যামেরার সামনে কথা বলতে রাজি হয়নি।

পটুয়াখালী ডাক বিভাগের ডেপুটি পোষ্ট মাস্টার কবির আহমেদ জানান পটুয়াখালী পোষ্টাল বিভাগের অধিনে পটুয়াখালী, বরগুনা, ঝালকাঠি, পিরোজপুর ও বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার মোট ৩৬৫টি সাব অফিস রয়েছে। কিন্তু সেগুলো মনিটরিং করতে ইন্সপেক্টর রয়েছে মাত্র ৩ জন। লোকবলের অভাবে সঠিকভাবে মনিটরিং করা সম্ভব হচ্ছে না।

বাংলাটিভি/ এসনূর

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close