দেশবাংলা

সিরাজগঞ্জে অনৈতিকভাবে সুবিধা নিচ্ছেন চাল-কল মালিক সমিতির নেতারা

মাহমুদুল হাসান, সিরাজগঞ্জ : সিরাজগঞ্জে অচল এবং বন্ধকৃত চাল-কলের নামে চাল বরাদ্দ নিয়ে অর্থনৈতিক সুবিধা নিচ্ছেন মালিক সমিতির নেতারা। অন্যদিকে একই স্থাপনায় দেয়া হয়েছে একাধিক চালকলের লাইসেন্স। এমন অবস্থায় জেলা খাদ্য অফিস ও মালিক সমিতির নেতারা একে অপরকে দুষছেন।

সিরাজগঞ্জ জেলা খাদ্য অফিসের তালিকা অনুযায়ী সদর উপজেলার শুধু শিয়ালকোল ইউনিয়নে ২৪টি চালকল দেখানো হয়েছে। এরমধ্যে শিয়ালকোল, চন্ডিদাস গাঁতী ও শিলন্দা গ্রামে রয়েছে ১৯টি চালকল। এসবের ১৩ টি দৃশ্যমান থাকলেও, চালু রয়েছে মাত্র ৬টি। বাকীগুলো কয়েক বছর যাবত বন্ধ হয়ে পড়ে আছে। ফলে নষ্ট হয়ে গেছে চাতাল, বয়লার, চুলাসহ অন্যান্য স্থাপনা। অথচ অস্তিত্বহীন এসব চালকলের নামে চলতি ইরি-বোরো মৌসুমে এসেছে বরাদ্দ।

চালকল মালিক সমিতির নেতারা নিয়েছেন একাধিক লাইসেন্স। কাগজে-কলমে তালিকা থাকলেও বাস্তবে মাত্র ১টি করে চালকল রয়েছে তাদের। এইচিত্র পুরো জেলাজুড়ে। ফলে, প্রকৃত চালকল মালিকরা বরাদ্দ কম পেয়ে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছেন।

সিরাজগঞ্জ সদর চালকল মলিক সমিতির সভাপতি আব্দুল মোতালেব শেখ জানান, জেলা খাদ্য অফিসের তালিকায় সদর উপজেলার ৮৮টি চালকলের মধ্যে ১৪টি বন্ধ দেখানো হলেও, বরাদ্দ দেয়া হয়েছে ৫৬০ মেঃ টঃ চাল। আর এসব বরাদ্দকৃত চাল, মালিক সমিতির কয়েকজন নেতা, জেলা খাদ্য কর্মকর্তার সাথে পরামর্শক্রমে সরবরাহ করা হয়।

এদিকে, বন্ধ চালকলের নামে বরাদ্দের জন্য মালিক সমিতিকে দুষছেন জেলা খাদ্য কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান খান। তিনি বলেন, আগামী আমন মৌসুমের আগে তালিকা হালনাগাদ করা হবে।

শষ্যভান্ডরখ্যাত জেলা সিরাজগঞ্জে আগামীতে সঠিক তালিকা করে প্রকৃত মালিকদের নামে বরাদ্দ বাড়ানোর দাবি সংশ্লিষ্টদের।

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close