দুর্ঘটনাবাংলাদেশ

আহতদের চিকিৎসার খরচ বহন করবে সিটি করপোরেশন

নিহতদের পরিবারকে ২০ হাজার করে নগদ অর্থ

রোববার সকালে চট্টগ্রামের পাথরঘাটা ব্রিকফিল্ড রোডের কুঞ্জমনি ভবনে গ্যাস লাইন বিস্ফোরণে ভবনের দেয়াল ধসে শিশুসহ নিহত ৭ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় ১৭ জন দগ্ধসহ আহত হয়েছে ২০ জন। নিহতদের মধ্যে ৪ জন পুরুষ, ২ জন নারী ও ১ জন শিশু রয়েছে।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক জহিরুল ইসলাম জানান, গুরুতর দগ্ধ ৭ জনকে হাসপাতালে আনা হলে দায়িত্বরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন। অন্যদিকে দগ্ধ ও আহতরা হাসপাতালে ভর্তি আছেন।

এদিকে, নিহতদের দাফন কাফনের জন্য প্রত্যেকের পরিবারকে ২০ হাজার টাকা করে নগদ অর্থ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন, জেলা প্রশাসক মো. ইলিয়াস হোসেন। এছাড়া, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্টেটকে প্রধান করে ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। ৫ দিনের মধ্যে কমিটি রিপোর্ট দেবে বলেও জানান তিনি।

দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যান চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। মেয়র বলেন, আহতদের সর্বোচ্চ চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হবে। তাদের যাবতীয় খরচ সিটি করপোরেশন বহন করবে।

তবে, একটি দুর্ঘটনা অপূরণীয় ক্ষতি। সব কর্তৃপক্ষের পাশাপাশি ভবন মালিক ও ভাড়াটিয়াদের গ্যাস, বিদ্যুতের লাইনে লিকেজ আছে কিনা নিয়মিত তদারকি করতে হবে। ব্যবহারকারীরা সচেতন হলে দুর্ঘটনা এড়ানো সম্ভব বলে মন্তব্য করেন মেয়র।

সিডিএর প্রধান নগর পরিকল্পনাবিদ শাহিনুল ইসলাম খান জানিয়েছেন, ভবনটি বিধি অনুযায়ী নির্মিত হয়নি। বিপজ্জনক ব্যাপার- সেপটিক ট্যাংক করা হয়েছে সড়কের পাশে। আর যথার্থ ডিজাইন না হলে সেপটিক ট্যাংকে গ্যাস জমে। এছাড়াও অবৈধভাবে সড়কের জায়গা দখল করে ভবনের সামনের অংশ বাড়ানো হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close