অন্যান্যবাংলাদেশ

লবন নিয়ে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে ক্রেতা-বিক্রেতাদের কারাদণ্ড

সারাদেশে পেঁয়াজের দাম যখন আকাশচুম্বি, তখন হঠাৎ করেই মঙ্গলবার দেশের বিভিন্ন স্থানে গুজব দেখা দেয় লববনের দাম নিয়ে। নির্ধারিত দামের চেয়ে অনেক বেশি দামে বিক্রি হয় লবন। অনেক ক্রেতাও না বুঝে আর গুজবে কান দিয়ে লবন কিনতে দোকানে ছোটেন, আর এই সুযোগটাই নেন অনেক অসাধু ব্যবসায়ী।

তবে বিকেলেই তৎপর হয়ে ওঠে প্রশাসন। ভ্রাম্যমাণ আদালত বিভিন্নস্থানে বিক্রেতার পাশাপাশি দণ্ড দিয়েছে ক্রেতাদেরও। এদিকে, বিশিষ্টজনরা কোন ধরনের গুজবে কান না দিতে সবার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

গত ক’দিন ধরে সারাদেশের মানুষের কাছে আলোচনার বিষয় পেঁয়াজের দামের ঊর্ধ্বগতি। গতকাল মঙ্গলবার হঠাৎ করে সে জায়গা দখল করে নেয় লবন।

হঠাৎ করেই গুজব ছড়িয়ে পড়ে লবনের ব্যাপক ঘাটতি দেখা দিয়েছে, অনেকে আগ-পিছ না ভেবে বাজারে ছুটে যান, কেনেন প্রয়োজনের চেয়ে অনেক বেশি লবন। আর এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে দ্বিগুণ-তিনগুণ দামে বিক্রি হয় লবন।

অবশ্য দেরি না করেই সক্রিয় হয়ে ওঠে প্রশাসন। ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে চট্টগ্রামে চার ব্যবসায়ীকে জরিমানা করা হয়। লবনের দাম নিয়ে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে জামালপুরে তিন তরুণকে দেয়া হয় কারাদণ্ড। রাজশাহীর বাগমারায় ছয় ব্যবসায়ীকে কারাদণ্ড দেয়া হয়। অতিরিক্ত লবন কেনায় দণ্ডিত করা হয় ক্রেতাকেও।

লবনের দাম নিয়ে ছড়ানো এ গুজবের পেছনে রাজনৈতিক কারণ থাকতে পারে, ধারণা কনজ্যুমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের সভাপতি গোলাম রহমানের।

এ ধরণের গুজব রোধে সরকারের কঠোর পদক্ষেপ নেয়ার পাশাপাশি বাজার নিয়ন্ত্রণে করণীয় নিয়ে পরামর্শ দিলেন বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতির সভাপতি হেলাল উদ্দিন।

গুজবে কান দিয়ে প্রয়োজনের অতিরিক্ত পণ্য কেনা থেকে বিরত থাকতে সবার প্রতি আহবানও জানান তারা।

মাসুদ সুমন, বাংলা টিভি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close