দেশবাংলা

পরকীয়ার ছবি ফেসবুকে পোস্ট করায় আত্মহত্যা

কুমিল্লার দাউদকান্দিতে পরকীয়ার ছবি ফেসবুকে পোস্ট করায় আত্মহত্যা করেছেন প্রবাসীর মেয়ে। দুই সন্তানের জননী হালিমার মৃত্যুতে তার পরিবারে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। মৃত্যুর জন্য দায়ী প্রতিবেশী আউলিয়া আলীকে আইনের আওতায় এনে শাস্তির দাবি স্বজন ও এলাকাবাসীর।

বাড়ির শূন্য আঙ্গীনায় মাকে খুজে ফিরে অবুঝ দুই শিশু তানজিন ও তানিম। মা হারানোর ব্যাথা বুঝে উঠার মত বয়স হয়নি তাদের। কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলার কদমতলী গ্রামের দীল মোহাম্মদ ও হালিমার ১২বছরের সংসার জীবন পরকীয়ার বিষাক্ত ছোবলে ভেঙ্গে যায়।

দীন মোহাম্মদ ঢাকায় একটি রেস্টুরেন্টে চাকরী করতেন এই সুযোগে প্রতিবেশী আউলিয়া আলীর সাথে অবৈধ সম্পর্কে জড়িয়ে পরে হালিমা। একপর্যায়ে আউলীয়া পালিয়ে যাওয়ার প্রস্তাব দিলে হালিমা রাজি না হওয়ায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে দুজনের ছবি পোষ্ট করে দেন। বিষয়টি মানতে না পেরে, গত ১৫ নভেম্বর বিষপান করে দুইদিন মৃত্যুর সাথে লড়াই করে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন হালিমা।

এলাকাবাসী ও তার পরিবারের সদস্যরা জানায়, আউলীয়া এলাকায় বিভিন্ন অবৈধ কাজের সাথে জড়িত। সে বিভিন্ন সময় ভয়ভীতি দেখিয়ে হালিমার কাছ থেকে টাকা আদায় করেছে। তার সাথে পালিয়ে না যাওয়ায় সে হালিমাকে আত্মহত্যা করতে বাধ্য করেছে বলে অভিযোগ করে,  আউলীয়ার দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবি করেন তারা।

হালিমার স্বামী জানায়, দুইটি অবুঝ শিশুকে লালন পালন করতে হিমশিম খেতে হচ্ছে তাকে। তার স্ত্রীর আত্মহত্যার জন্য দায়ী আউলীয়ার ফাসিঁর দাবি জানান তিনি।

এই মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম  জানায়, আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চালানো হচ্ছে। তাকে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি প্রদান করা হবে।

ছোট্ট একটি ভুলের কারণে আজ দুটি শিশুর ভবিষ্যত অনিশ্চয়তার মধ্যে রয়েছে। আমাদের মাঝে ধর্মীয় মূল্যবোধ জেগে উঠবে আর সমাজ থেকে এসকল সমস্যা দুর হবে এমনটাই প্রত্যাশা তাদের।

মো.আরিফুর রহমান, কুমিল্লা প্রতিনিধি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close