দেশবাংলা

সুইট লেডি চাষে লাভবান হচ্ছেন কৃষকরা

হবিগঞ্জের চুনারুঘাটে সুইট লেডি হাইব্রিড জাতের পেঁপে চাষে লাভবান হচ্ছেন কৃষকরা। ভাইরাসমুক্ত সুইট লেডি পেঁপে চাষে লাভবান হওয়ায় এ চাষে দিনদিন আগ্রহী হচ্ছেন অনেক কৃষক। কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগ জানায়, ধানের চেয়ে পেঁপে চাষে খরচ বাদ দিয়ে ২০ গুণ লাভ করা সম্ভব।

হবিগঞ্জের চুনারঘাট উপজেলার ঘনশ্যামপুর গ্রামে ৪ মাস আগে ৭২ শতাংশ জমিতে পেপে গাছ রোপন করেন, স্থানীয় কৃষক ফারুক উল্লা। ইতোমধ্যে চুনারুঘাট কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের সহায়তায় পেঁপে চাষ করে স্বাবলম্বী হয়েছেন তিনি।

সুইট লেডি হাইব্রীড জাতের পেঁপের চারা রোপনের ৪৫ দিন পর গাছে ফুল আসে। ৫ বছর পর্যন্ত বাণিজ্যিকভাবে চাষ করে ফল বিক্রি করা যাবে। ৫ বছরে খরচ বাদে কাচাঁ পেপে বিক্রি করে প্রায় ১২ লাখ টাকা এবং পাঁকিয়ে বিক্রি করলে এর লাভ আড়াই গুণ বেশী হবে বলে জানান, কৃষক ফারুক।

এর মধ্যে ৭০ মন পেপে বিক্রি করেছেন তিনি। ভাল লাভ হওয়ায় অনেক কৃষক এ জাতের পেঁপে চাষে আগ্রহী হয়ে উঠেছেন। সুইট লেডি হাইব্রিড জাতের পেঁপে চাষে লাভবান হওয়ার পাশাপাশি পরিবার নিয়ে ভাল আছেন বলে জানান, স্থানীয় কৃষকরা।

চুনারুঘাট কৃষি কর্মকর্তা জালাল উদ্দিন সরকার জানান, রংপুরের একটি নার্সারী থেকে সুইট লেডি হাইব্রিড জাতের বীজ এনে, তিনি চারা তৈরী করে প্রায় ১৬ হাজার চারা কৃষকদের মাঝে বিক্রি করেন। বছরে প্রতিটি গাছ থেকে ৫০ থেকে ৬০ কেজি পেঁপে পাওয়া সম্ভব।

মাঠ দিবসের মাধ্যমে ভাইরাসমুক্ত পেঁপে চাষ বিভিন্ন উপজেলাতে ছড়িয়ে দেয়া হলে কৃষি শিল্পে পেপে চাষ ব্যাপকভাবে অবদান রাখবে বলে মনে করেন, জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের অতিরিক্ত উপ-পরিচালক মোস্তফা ইকবাল আজাদ ।

বেকার যুবকরা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের সহায়তা নিয়ে সুইট লেডি হাইব্রিড জাতের পেঁপে চাষে দ্রুত ভাগ্য বদলাতে পারেন বলে মনে করছেন, সংস্লিষ্টরা।

মোতাব্বির হোসেন, হবিগঞ্জ চুনারঘাট

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close