দেশবাংলা

ঘন কুয়াশায় বীজতলায় বিরুপ প্রভাব

নীলফামারীতে গেল কয়েক সপ্তাহের ঘন কুয়াশা আর শৈত্য প্রবাহের বিরুপ প্রভাব পড়েছে ইরি-বোরো বীজতলায়।চারাগুলোয় হলুদ বর্ন ধারণ করেছে। বীজতলার চারাকে সবুজ, সতেজ আর সবল রাখতে বিভিন্ন ওষুধ প্রয়োগ করেও, কোন সুফল না পাওয়ায় দু:শ্চিন্তায় পড়েছেন তারা। তবে চারা বাঁচাতে বিভিন্ন পরামর্শ দেয়ার কথা জানিয়েছে, জেলা কৃষি অধিদপ্তর।

চলতি মৌসুমে নীলফামারীর ৬ উপজেলায় ৮৩ হাজার হেক্টর জমিতে ইরি-বোরো আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।এর মধ্যে ৪ হাজার ১৫০ হেক্টর জমি চাষাবাদের জন্য বীজধান ফেলা হয়। বীজতলায় চারা বেড়ে ওঠার সময় আক্রান্ত হয়ে পড়ে বৈরী আবহাওয়ার প্রভাবে। চারাগুলোতে চির ধরে দেখা দেয় হলুদ বর্ণ। এতে ইরি-বোরো আবাদে লোকশানের আশংকা করছেন কৃষকরা।

এদিকে, সঠিক পরামর্শের জন্য জেলা কৃষি বিভাগের মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সহায়তা না পাওয়ার অভিযোগ, স্থানীয় কৃষকদের। তবে ঘন কুয়াশায় বীজতলায় চারা হলুদ বর্ন হওয়ার কথা স্বীকার করে, চারা বাঁচাতে কৃষককে নতুন করে বিভিন্ন পরামর্শ দেয়া হচ্ছে বলে জানান, কৃষিবিদ সিরাজুল ইসলাম।

ইরি-বোরো আবাদে লক্ষমাত্রা পূরণে এবং চাষিদের ক্ষতির দিক বিবেচনা করে সংস্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ চারা বাঁচাতে দ্রুত পদক্ষেপ নেবেন, এমন প্রত্যাশা স্থনীয় চাষিদের।

আলফাজ আল মামুন, নীলফামারী প্রতিনিধি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close