আন্তর্জাতিকএশিয়া

চার দফা শান্তি চুক্তিতে যা আছে

দীর্ঘ সংঘাতে শেষে তালেবানের শর্ত মেনে নিয়ে আফগানিস্তান ছাড়তে চুক্তি সই করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। ১৯ বছর আগে ওসামা বিন লাদেনকে ঘিরে আফগানিস্তানে হামলা শুরু করে যুক্তরাষ্ট্র।

শনিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) কাতারের রাজধানী দোহায় মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও এবং তালেবান নেতাদের উপস্থিতিতে এই চুক্তি সই হয়। চুক্তি অনুযায়ী আগামী ১৪ মাসের মধ্যে আফগানিস্তান ছাড়তে হবে মার্কিন ও ন্যাটো সেনাদের।

এদিকে, আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম এ ঘটনাকে যুক্তরাষ্ট্র কর্তৃপক্ষ তালেবানের শর্ত মেনে নেয়া হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়েছে। যা প্রকৃতপক্ষে আফগান যুদ্ধে মার্কিনিদের চুড়ান্ত পরাজয় হিসেবে দেখা হচ্ছে। তবে, মাইক পম্পেও বলেন, আজ এ চুক্তির মাধ্যমে শান্তির সূচনা হল। আফগানিস্তানে শান্তি ফিরিয়ে আনতে যুক্তরাষ্ট্র সব পক্ষের আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করে।

তালেবান এবং যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে সাই হওয়া চুক্তিতে চারটি মূল ক্যাটাগরি আছে বলে খবর প্রকাশ করেছে আল জাজিরা।

১. যুক্তরাষ্ট্র এবং তার মিত্রদের বিরুদ্ধে কোন ব্যক্তি কিংবা গোষ্ঠীকে আফগানিস্তানের মাটি ব্যবহার করতে দেয়া হবে বলে নিশ্চয়তা দিতে হবে।

২. আফগানিস্তান থেকে সব বিদেশি সেনা সরিয়ে নেয়ার টাইমলাইন ঘোষণার নিশ্চয়তা দিতে হবে।

৩. আন্তর্জাতিক সাক্ষীর উপস্থিতিতে আফগানিস্তানের মাটি থেকে সব বিদেশি সেনা সরিয়ে নেয়ার গ্যারান্টি এবং যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্রদের বিরুদ্ধে আফগানিস্তানের মাটি ব্যবহৃত হতে না দেয়ার গ্যারান্টি দেয়ার পর আফগানিস্তান ইসলামিক প্রজাতন্ত্রকে (যুক্তরাষ্ট্র যাকে স্টেট হিসেবে স্বীকার করে না, বরং তালেবান হিসেবে বিবেচনা করে) আফগান সরকারের (তালেবান যাকে সরকার হিসেবে মানে না) সঙ্গে আলোচনায় বসতে হবে। এই আলোচনা হবে ১০ মার্চ ২০২০ থেকে; যা হিজরি ১৫ রাজ ১৪৪১।

৪. আফগানিস্তানের ভেতরকার দুই পক্ষের আলোচনায় একটি স্থায়ী যুদ্ধবিরতি নিয়ে আলোচনা হবে। দুই পক্ষ যুদ্ধবিরতির তারিখ এবং প্রকারতা নিয়ে সিদ্ধান্তে আসবে। এছাড়া আফগানিস্তানের ভবিষ্যৎ রাজনৈতিক রোডম্যাপ কি হবে তাও ঘোষণা করা হবে দুই পক্ষের আলোচনার মাধ্যমে।

চুক্তি সই হওয়ার আগে যুক্তরাষ্ট্র এবং আফগান সরকারের যৌথ ঘোষণায় বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্র-তালেবানের চুক্তি অনুযায়ী তালেবান যদি তাদের দেয়া প্রতিশ্রুতি রক্ষা করে, তাহলে আগামী ১৪ মাসের মধ্যে আফগানিস্তান থেকে অবশিষ্ট সকল সৈন্য প্রত্যাহার করে নেবে যৌথবাহিনী।– সময় টিভি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close