আন্তর্জাতিক

লকডাউন শিথিলের ক্ষেত্রে ৬টি শর্ত দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

করোনা পরিস্থিতিতে কোনো জায়গায় লকডাউন শিথিলের ক্ষেত্রে ৬টি অবশ্য পালনীয় নির্দেশনা বেঁধে দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। বলা হয়েছে, এসব শর্ত পূরণ করলেই কেবল, স্থানীয়ভাবে লকডাউন উঠানো যেতে পারে। তবে সংক্রমণ যাতে নিয়ন্ত্রণে থাকে সেটি নিশ্চিত করতে হবে।

বিভিন্ন দেশের লকডাউন শিথিলের সিদ্ধান্তের প্রেক্ষিতে এই নির্দেশনা দিলো সংস্থাটি। এদিকে, গোটা বিশ্বে কোভিড-১৯ প্রাণহানি ছাড়িয়েছে দু’লাখ ৭০ হাজার। আক্রান্ত ৩৯ লাখ ১৩ হাজারের বেশি মানুষ, এরমধ্যে সুস্থ হয়েছেন প্রায় সাড়ে ১৩ লাখ। যুক্তরাষ্ট্রে আবারো ভয়ংকর রূপ ধারণ করেছে কোভিড নাইন্টিন। গত ২৪ ঘন্টায় আরো দুই হাজার ১২৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশটিতে মোট ৭৬ হাজার ৯২৮ জন মানুষের মৃত্যু হলো।

নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ৩০ হাজার। মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১২ লাখ ৯২ হাজার ৬২৩। বাল্টিমোরভিত্তিক বিশ্ববিদ্যালয় জনস হপকিন্স জানায়, দেশটিতে মোট আক্রান্ত বিশ্বের মোট আক্রান্তের প্রায় এক-তৃতীয়াংশ। হোয়াইট হাউসে ট্রাম্পের ব্যক্তিগত এক পরিচালক করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানিয়েছে মার্কিন গণমাধ্যম সিএনএন। ক্যালিফোর্নিয়ায় লকডাউন শিথিলের ঘোষণা দেয়া হয়েছে।

এরমধ্যেই, স্বাস্থ্যবিধি মেনে কম ক্ষতিগ্রস্ত রাজ্য মন্টানা অঙ্গরাজ্যে বিদ্যালয় খুলে দেয়া হয়েছে। ৭ সপ্তাহ পর শনিবার থেকে কম প্রয়োজনীয় ব্যবসা প্রতিষ্ঠানও খুলে দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে নেভাদা অঙ্গরাজ্য কর্তৃপক্ষ। পাকিস্তানেও আগামী শনিবার থেকে লকডাউন শিথিলের ঘোষণা দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ইমরান খান।

ভাইরাসের বিস্তাররোধে আরোপ করা লকডাউন তুলে নিতে শুরু করেছে বিশ্বের আরো কয়েকটি দেশ। সেই সঙ্গে শিথিল করা হচ্ছে বিধিনিষেধও। তবে লকডাউন তোলার ক্ষেত্রে ছয়টি পরামর্শ দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। এই ছয় বিষয়ে নজর দিতে দেশগুলোকে সতর্ক করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক জানান, যদি দেশগুলো অন্তর্বর্তী সময়টায় খুব যত্নবান না হয় এবং ধাপে ধাপে বিধিনিষেধ শিথিল না করে, তাহলে মহামারি আবারো ছড়িয়ে পড়বে এবং আবার লকডাউনের পথে হাঁটতে হতে পারে তাদের।

এদিকে, সর্বশেষ হিসেবে ফ্রান্সে এখন পর্যন্ত প্রায় ২৬ হাজার মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৭৪ হাজার ৭৯১ জন। আক্রান্তের সংখ্যার দিক থেকে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে স্পেন। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ২৬ হাজার ৭০ জনের মৃত্যু হয়েছে। ২ লাখ ৫৬ হাজার ৮৫৫ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত। এদিকে জার্মানিতে মৃত্যু হয়েছে ৭ হাজার ৩৯২ জনের। রাশিয়ায় আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৭৭ হাজার ১৬০ জন, মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ৬২৫ জনের।

বাংলা টিভি/রাসেল

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close