অন্যান্যবাংলাদেশ

ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের সাথে পশু কোরবানি

ঈদে সৌহার্দ্য আর ত্যাগের মহীমায় কোরবানি আদায় করেন মুসলমানরা। নামাজ শেষে, ধর্মীয় রীতি মেনে মহান আল্লাহর সন্তুষ্টি আদায়ে পশু কোরবানি দেয়া হয়। মুসল্লিদের প্রত্যাশা, পৃথিবীর সবার মাঝে শান্তি ফিরে আসুক। করোনাকালে আর্থিক সংকট ও টানা বন্যায় দুর্গতদের কল্যাণে, মানুষে মানুষে সহমর্মিতা বৃদ্ধি পাক। এতেই অর্থবহ হবে কোরবানীর গুরুত্ব।

মুসলিম জাহানের জন্য খুশির বার্তা নিয়ে বছর ঘুরে আবারও ফিরে এসেছে ত্যাগের মহিমায় ভাস্বর পবিত্র ঈদুল আজহা। সারাবিশ্বের মুসলিমরা ১০ জিলহজের এ দিনে পশু কোরবানি করে থাকেন। তবে চলমান করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ও বন্যার কারণে এবার ঈদ আনন্দ অনেকটাই ম্লান।

তারপরও, দেশজুড়ে ধর্মপ্রাণ মুসলিমরা ঈদের নামাজ শেষে, মহান আল্লাহর সন্তুষ্টি আদায়ে পশু কোরবানি দিতে পেরে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন।

তবে, অন্যান্য বছরের চেয়ে এবার অপেক্ষাকৃত কম কোরবানি দিতে দেখা গেছে, রাজধানীতে। তবে সংক্রমণ পরিস্থিতির মধ্যে, কোরবানীর বর্জ যত্রতত্র ফেলে রাখার প্রবণতাও কিছুটা কমেছে।

একইসঙ্গে বিশ্বে করোনা মহামারি ও বাংলাদেশ টানা বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের জন্য, সৃষ্টিকর্তার কাছে প্রার্থনা প্রতিটি মুসলমানের।

মাসুদ সুমন, বাংলা টিভি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close