অপরাধবাংলাদেশ

সামাজিক মূল্যবোধ অবক্ষয়েই ধর্ষণ প্রবণতা

সামাজিক মূল্যবোধের অবক্ষয়ের কারণে দেশে ধর্ষণের মতো নৃশংসতা বাড়ছে বলে মনে করছেন মানবাধিকার কর্মীরা। সেইসঙ্গে প্রচলিত আইন ও বিচারের দীর্ঘসুত্রিতার কারণে অপরাধীরা আইনের ফাঁক গলিয়ে বেরিয়ে যাচ্ছে।

অপরাধ বিশ্লেষকরা বলছেন, বিভিন্ন সময়ে ধর্ষণের সাথে যুক্ত হচ্ছে ব্যক্তিগত প্রতিহিংসাও। সমাজে লিঙ্গ বৈসাদৃশ্যমূলক মনোভাব দূর করতে, ছোটবেলা থেকেই শিশুদের সঠিক শিক্ষায় গড়ে তোলার পরামর্শ তাদের।

ক্রমেই বেড়ে চলেছে ধর্ষণের মতো ঘৃণ্য ঘটনা। তাই তো ধর্ষকদের শাস্তির দাবিতে হুংকার তুলেছে গোটা দেশ। দৃষ্টান্তমূলক সাজা বাস্তবায়নই একমাত্র সমাধান। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বিকৃত মানসিকতার কারণেই সামাজিক মুল্যবোধ অবক্ষয়ে বাড়ছে এমন নারকীয় অপরাধ। আর নিপীড়তদের মানসিক উন্নয়ন এবং পুনর্বাসন জরুরী বলে মনে করেন মানবাধিকার কর্মীরা।

অনেক ক্ষেত্রে রাজনৈতিক প্রভাব ও প্রতিপত্তি দেখিয়েও, এমন উশৃংখলতার বলয় গড়ে উঠেছে। ধর্ষণ বন্ধে প্রচলিত আইন পরিবর্তন করে সরকারের আরও কঠোর ব্যবস্থা নেয়া প্রয়োজন বলে মনে করছেন আইনজীবী সমিতির সভাপতি সালমা আলী।

অপরাধ বিশ্লেষক ফারজানা খোন্দকার বলেন, লিঙ্গ বৈষম্য কাটিয়ে তুলতে  ছোট বেলা থেকে শিশুদের শিক্ষা দিলে, ধর্ষণের মত নৃশংসতা কমে আসবে। এছাড়া ব্যক্তিগত প্রতিহিংসা থেকেও এধরনের অপরাধ প্রবণতা বাড়ছে। ধর্ষণ বন্ধে নারীর প্রতি সমাজের দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তন অপরিহার্য বলেও মনে করেন বিশেষজ্ঞরা।

আরমান কায়সার, বাংলা টিভি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button