আওয়ামী লীগরাজনীতি

ঢাকায় মনু, নওগাঁয় হেলাল

নওগাঁ-৬ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আনোয়ার হোসেন হেলাল বিজয়ী হয়েছেন। ১ লাখ ৫ হাজার ৪৬৭ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন নওগাঁর আসনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী আনোয়ার হোসেন হেলাল। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী বিএনপি শেখ রেজাউল ইসলাম (ধানের শীষ) পেয়েছেন ৪ হাজার ৫১৭ ভোট।

আর ঢাকা-৫ আসনে জয়ের পথে রয়েছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী মনিরুল ইসলাম মনু। ১৮৭ ভোটকেন্দ্রের মধ্যে ১৭৮টির ফল পাওয়া গেছে। এতে আওয়ামী লীগ প্রার্থী মনু পেয়েছেন ৪৪১৬৩ ভোট। বিএনপি প্রার্থী সালাহউদ্দিন পেয়েছেন ২৮০৮, জাতীয় পার্টির প্রার্থী পান ৪০৩।

অন্যদিকে, বিএনপি মনোনিত প্রার্থী রেজাউল ইসলাম বিকালেই ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন। দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি দাবি করেন, ভোটে কোনো রকম নিয়ম মানা হচ্ছে না। বিএনপির এজেন্টদের কেন্দ্রে থেকে

রানীনগর ও আত্রাই নিয়ে গঠিত নওগাঁ-৬ আসনের ১৬টি ইউনিয়নে ১০৪টি ভোটকেন্দ্রের ৭২১টি ভোটকক্ষে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। এখানে মোট ভোটার সংখ্যা ৩ লাখ ৬ হাজার ৭২৫ জন। এর মধ্যে পুরুষ ১ লাখ ৫৩

হাজার ৭৫৮ জন এবং নারী এক লাখ ৫২ হাজার ৯৬৭ জন। ৩৬.৪ শতাংশ ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন। ঢাকা-৫ ও নওগাঁ-৬ আসনে শনিবার সকাল ৯টায় ভোট শুরু হয়, চলে বিকাল ৫টা পর্যন্ত। প্রতিটি ভোটকক্ষে একটি করে ইভিএম এবং প্রতিটি কেন্দ্রে কারিগরি দল রাখা হয়। কেন্দ্রে সবার জন্য প্রয়োজনীয় সুরক্ষা সামগ্রী এবং স্বাস্থ্য সুরক্ষার বার্তা নিয়ে কেন্দ্রের বাইরে ব্যানারও ছিল।

এর আগে ঢাকা-৫ আসনের বিএনপির প্রার্থী সালাহউদ্দিন অভিযোগ করেন, তার এজেন্টদের বের করে দেওয়া হয়েছে ভোটকেন্দ্র থেকে। পরে ভোট বর্জন করে পুনরায় নির্বাচনের দাবি জানান বিএনপির এই প্রার্থী।

তবে ভোটগ্রহণ চলাকালে ‘পরিবেশ না থাকা, কেন্দ্র দখল’সহ বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ তুলে নওগাঁ-৬ আসনে বিএনপি প্রার্থী শেখ রেজাউল ইসলাম রেজুর নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেন।

সরেজমিনে দেখা গেছে, ঢাকা-৫ আসনের মতো নওগাঁয় ভোটারের তেমন উপস্থিতি ছিল না। তবে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কোথাও হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

হাবিবুর রহমান মোল্লার মৃত্যুতে এই আসনটি শূন্য হয়। অন্যদিকে ইসরাফিল আলমের মৃত্যুতে শূন্য হয় নওগাঁ-৬ আসন।

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button