জনদুর্ভোগবাংলাদেশ

আলুর বাজারে অস্থিরতা কাটেনি, নজরদারির তাগিদ ভোক্তা সংগঠনের

আলুর বাজারে অস্থিরতার কারণে, কেজিপ্রতি দাম নির্ধারণ করে দেয় সরকার। নির্ধারিত দামে আলু বিক্রি না করলে ব্যবস্থা নেয়ার কথাও বলা হলেও, বাজারের চিত্র পুরোই উল্টো। সাধারণ ক্রেতাদের নাগালের বাইরে আলু।

এদিকে, সংকট নিরসনে, মজুদদার সিন্ডিকেটের দৌরাত্ম বন্ধ এবং বাজারে কঠোর নজরদারির কোন বিকল্প নেই বলে মনে করে, কনজ্যুমার এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ।

কয়েক সপ্তাহ ধরে আলুর দাম নিয়ে বিপাকে ক্রেতারা। লাগামহীনভাবে বেড়েছে রান্নায় পরিচিত নিত্যপণ্যটির দাম। আলুর দর গ্রাহকের নাগালে রাখতে সরকারের নির্ধারিত দাম এখনও মানছেন না বিক্রেতারা। বেশি দামে কেনা, পরিবহন ও শ্রমিক খরচসহ বিভিন্ন অজুহাত দেখিয়ে খুচরা পর্যায়ে এখনও ৫০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে আলু।

এদিকে সরকার নির্ধারিত দামে আলু বিক্রি না হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সাধারণ ক্রেতারা।

আর সরবরাহ ব্যহত করে যারা আলুর বাজার অস্থিতিশীল করছে তাদেরকে চিহ্নিত করে, আইনের আওতায় আনা সময়ের দাবি বলে মনে করে কনজ্যুমার এসোসিয়েশন বাংলাদেশের সভাপতি গোলাম রহমান। কেবল ঘোষণা নয়, বাজারে কঠোর তদারকি জরুরি।

দেশে মোট আলুর চাহিদা প্রায় ৭৭ দশমিক ৯ লাখ মেট্রিক টন। গতবছরের হিসেবে উৎপাদিত আলু থেকে উদ্বৃত্ত ছিলো প্রায় ৩১ দশমিক ৯১ লাখ মেট্রিক টন। এছাড়া রপ্তানি হয় কিছু পরিমাণ আলু। তারপরও বাজারে আলুর ঘাটতি হওয়ার আশঙ্কা নেই বলে মনে করেন, সংশ্লিষ্টরা।

শাহরিয়ার রাজ, বাংলা টিভি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button