অন্যান্যবাংলাদেশ

এসএমই খাতকে শক্তিশালী করার তাগিদ

কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে এসএমই খাতকে আরো শক্তিশালী করার কোন বিকল্প নেই বলে মনে করে পলিসি রিসার্চ ইন্সটিটিউট (পিআরআই)। সংস্থাটির এক গবেষণা বলছে, মাত্র পাঁচ বছরের ব্যবধানে ক্ষুদ্র ও মাঝারী শিল্পগুলো গড়ে ১০৫ দশমিক ৭ শতাংশের বেশি নতুন চাকরির সুযোগ তৈরি করতে পারে। উৎপাদনমুখী শিল্প কারখানায় এ খাতের কর্মসংস্থান ১৩১% বেড়েছে বলেও গবেষণায় দাবি করা হয়।

আইডিএলসি ফাইন্যান্স লিমিটেড ও পিআরআই যৌথভাবে আইডিএলসি ফাইন্যান্স-এর ৭৮২ এসএমই উদ্যোক্তার ওপর একটি গবেষণা চালায়যার মূল প্রতিপাদ্য ছিল ‘কর্মসংস্থান তৈরিতে ক্ষুদ্র ও মাঝারী শিল্পের ভূমিকা।’

মঙ্গলবার সকালে ভার্চুয়াল এক কনফারেন্সে পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউট এর গবেষক ডক্টর বজলুল হক খন্দকার ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পে বিনিয়োগে বাংলাদেশের অবস্থান তুলে ধরেন। পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউট এর এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর ডক্টর আহসান এইচ মনসুর বলেন, অন্তত বাংলাদেশের পেক্ষাপট বিবেচনায় কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে এসএমই খাতে আরো বিনিয়োগ প্রয়োজন।

এসএমই ব্যাবসায় অর্থায়ন শুধুমাত্র লাভজনকই নয়, বরং সামগ্রিক আর্থসামাজিক প্রেক্ষাপটেও এর গুরত্ত্বপূর্ণ ভুমিকা রয়েছে বলে জানান, আইডিএলসি এর  সিইও ব্যাবস্থাপনা পরিচালক আরিফ খান।

আইডিএলসি এর গবেষণাটি নিশ্চিত করেছে যে, ক্ষুদ্র ও মাঝারী শিল্পগুলো পাঁচ বছরের ব্যবধানে গড়ে ১০৫.৭ শতাংশের বেশি নতুন চাকরির সুযোগ তৈরিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে। শুধু তাই নয়, পুরুষ উদ্যোক্তাদের চেয়ে মহিলা মালিকানাধীন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান সমূহ উল্লেখযোগ্যভাবে (১৪৬.২ %) বেশি কর্মসংস্থান তৈরী করতে সক্ষম হয়েছে।

শাহরিয়ার রাজ, বাংলা টিভি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button