অন্যান্যবাংলাদেশ

‘বঙ্গবন্ধু রেল সেতু’ হবে ট্রান্স এশিয়ান লাইফলাইন

যমুনা নদীর উপর বহু প্রত্যাশিত ‘বঙ্গবন্ধু রেল সেতু’ প্রকল্পের আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু করলো সরকার। যা হবে, উত্তরবঙ্গ হয়ে এশিয়ান পরিবহন নেটওয়ার্কের লাইফলাইন।

রোববার সকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে আনুষ্ঠানিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ এই সেতুর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এসময় তিনি বলেন, অতীতে গলাটিপে হত্যা করা রেলওয়ে ব্যবস্থাকে পুনরুজ্জীবিত করেছে তাঁর সরকার।

দেশের যোগাযোগ ব্যবস্থায় বিল্পব ঘটে ১৯৯৮ সালে যমুনা নদীর উপর বঙ্গবন্ধু সেতু নির্মাণের ফলে। যা একইসাথে সড়ক ও রেলওয়ে নেটওয়ার্কে আনে যুগান্তকারি পরিবর্তন। এই সেতুর মাধ্যমে উত্তরবঙ্গের সাথে গোটা দেশের পরিবহন সেবা উন্নয়নের পাশাপাশি, প্রথমবারের মতো সরাসরি সংযুক্ত হয় রেলওয়ের পূর্বাঞ্চল ও পশ্চিমাঞ্চল।

পরবর্তীতে বহুমুখী এই সেতুর ব্যবহার বাড়লে স্থাপনাটির স্থায়ীত্বকাল নিয়ে ঝুঁকির এড়াতে পণ্যবাহী ট্রেন চলাচল বন্ধ রাখা হয়। গতিসীমা একেবারে কমিয়ে দেয়া হয় যাত্রীবাহি ট্রেনেরও।

বর্তমান সরকারের ধারাবাহিক মেয়াদে বঙ্গবন্ধু সেতুর পাশ দিয়ে আলাদা রেল সেতু নির্মাণের পরিকল্পনা নেয়া হয়। এরই অংশ হিসেব আজ  বঙ্গবন্ধু রেলওয়ে সেতু প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন জাতির পিতার কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এসময় প্রধানমন্ত্রী জানান, আগামীতে উত্তরবঙ্গ হয়ে এশিয়ান রেল পরিবহন নেটওয়ার্কের লাইফলাইন হবে এই প্রকল্প।অতীতের বিভিন্ন শাসনামলে দেশের রেলওয়ের অবহেলা জর্জরিত করা হয়েছিলো উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, তাঁর সরকার এই খাততে আধুনিকায়নের মাধ্যমে দেশের যোগাযোগ ব্যবস্থা সমৃদ্ধ করেছে।

বঙ্গবন্ধু রেল সেতু নির্মিত হলে, আন্তর্জাতিক পরিবহন নেটওয়ার্কে বাংলাদেশের গুরুত্ব বেড়ে যাবে বহুগুণ। যা হবে সোনার বাংলা অবিস্মরণীয় মাইলফলক।

আসাদ রিয়েল, বাংলা টিভি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button