দেশবাংলা

জমি অধিগ্রহণ জটিলতায় সিরাজগঞ্জ সড়কের কাজ

জমি অধিগ্রহণ সংক্রান্ত আমলাতান্ত্রিক জটিলতায় থমকে গেছে, সিরাজগঞ্জের চার লেন মহাসড়ক প্রকল্পের কাজ।দীর্ঘ আড়াই বছরেও কাজ শেষ না হওয়ায়,হতাশ জেলাবাসী। নতুন প্রজ্ঞাপনের ফলে, অতিরিক্ত অর্থের প্রয়োজন হওয়ায়, এ সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে। তবে, দ্রুত বরাদ্দের জন্য আবেদন করা হয়েছে বলে জানায় সড়ক বিভাগ ও জেলা প্রশাসন।

২০১৮ সালে বঙ্গবন্ধুসেতুর পশ্চিমে সয়দাবাদ মুলিবাড়ির মোড় থেকে সিরাজগঞ্জ শহর হয়ে নলকা পর্যন্ত দুই ও চার লেন মহাসড়ক নির্মাণের মেগা প্রকল্প হাতে নেয় বর্তমান সরকার।

২১ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যরে তিনটি প্যাকেজের মধ্যে ৭ কিলোমিটার করে দুই লেন, আর শহরের কাটাওয়াবদা থেকে চন্ডিদাসগাঁতী পর্যন্ত ৬.৬ কিলোমিটার চার লেন মহাসড়ক। ২৬৪ কোটি টাকা ব্যয়ে প্রকল্পটির কাজ গত বছর ডিসেম্বরের মধ্যে শেষ করার কথা ছিল।

নির্ধারিত সময়ের আগেই দুই লেনের কাজ শেষ হলেও জমি অধিগ্রহণ জটিলতায় শহরের বাজার স্টেশন স্বাধীনতা স্কয়ার থেকে সার্কিট হাউজ এবং মলশাপাড়া কাটাওয়াবদা মোড় থেকে দাঁদআলী মোড় পর্যন্ত আটকে গেছে প্রায় দেড় কিলোমিটার চার লেনের কাজ।

শহীদ এম মনসুর আলী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ঘিরে যে চার লেনের মহাসড়ক,তাতে দেখা যায়,বিদ্যুতের খুটি রেখেই কাজ চলছে অসমাপ্তভাবে। এতে শহরে দুর্ঘটনা ও যানজট সহ পোহাতে হচ্ছে নানা দুর্ভোগ।

এদিকে, জমি অধিগ্রহণসহ নানা জটিলতায় চার লেনের কাজ করা যাচ্ছেনা জানায়, ঠিকাদার। আর দরপত্রে জমি অধিগ্রহণ ব্যয় ৭৩ কোটি টাকা থাকলেও নতুন আইনে জেলা প্রশাসনের চাহিদা দেখানো হয়েছে ১শ ৪৫ কোটি টাকা। যা বরাদ্দ হলেই সকল অসমাপ্ত কাজ সঠিকভাবে সম্পন্ন হবে বলে জানালেন, সিরাজগঞ্জের সড়ক বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী আশরাফুল ইসলাম প্রামানিক।

২০১৭ সালের জমি অধিগ্রহণ আইনে ক্ষতিপূরণ দেড় থেকে তিনগুণ করার কারণে দ্বিগুণ টাকার প্রয়োজন। অতিরিক্ত টাকার জন্যই কার্যক্রম ব্যহত হচ্ছে জানায়, জেলা প্রশাসন।

শহরের গুরুত্বপূর্ণ এই বাজার ষ্টেশন চত্ত্বর থেকেই চার লেন মহাসড়কের কাজ বর্তমানে বন্ধ।আর এটি জেলা সদরের প্রধান সড়ক ।কাজ শেষ না হওয়ায় দুর্ঘটনার পাশাপাশি মানুষের ভোগান্তি আরো বেড়েছে।এতে প্রত্যাশা আর স্বপ্ন ভঙ্গের শঙ্কাও বেড়েছে জেলাবাসির।

মাহমুদুল হাসান উজ্জল, বাংলাটিভি, সিরাজগঞ্জ

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button