বাংলাদেশঅপরাধআইন-বিচার

দেশের বিভিন্ন ইস্যুতে অপপ্রচারে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে

করোনা ভাইরাসের মোকাবিলায় হিমশিম খাচ্ছে সারা বিশ্ব। বাংলাদেশেও করোনা প্রতিরোধে নানা প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে সরকার। এর মধ্যেই বিভিন্ন দেশে অবস্থান করা বাংলাদেশীদের একটি গোষ্ঠী বিভিন্ন ইস্যুতে ধারাবাহিক অপপ্রচার চালিয়ে আসছে। বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, এ ধরণের অপপ্রচার দেশের অভ্যন্তরে জাতিগত সংঘাত তৈরি করতে পারে। তাই কূটনৈতিক প্রচেষ্টার মাধ্যমে তাদেরকে দেশে ফিরিয়ে এনে বিচারের মুখোমুখি করা উচিত।

দীর্ঘদিন ধরেই বিদেশে বসে কিছু বাংলাদেশী সরকার ও রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালিয়ে আসছে।  এক্ষেত্রে মাধ্যম হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে বিভিন্ন ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ও ইউটিউব চ্যানেল।  এসব অপপ্রচারে জড়িত অনেকের বিরুদ্ধেই সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠীর সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকাসহ রয়েছে নানা অভিযোগ।

এ ধরণের উস্কানিমূলক বক্তব্য ও অপপ্রচার কোনো রাষ্ট্রই বরদাস্ত করবে না বলে মনে করেন আইনজ্ঞ অধ্যাপক ড. মিজানুর রহমান। দোষীদের বিচারের আওতায় নিয়ে আসতে কূটনৈতিক তৎপরতার ওপর জোর দেন এই শিক্ষাবিদ।

তবে দেশের বিভিন্ন ইস্যুতে ধারাবাহিকভাবে অপপ্রচারে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে এখনও কোনো কূটনৈতিক তৎপরতা নেয়া হয়নি বলে জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ জানিয়েছেন, বিদেশে বসে যাতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কেউ ভুয়া বা মিথ্যা তথ্য দিয়ে বিভ্রন্তি  ছড়াতে না পারে সেজন্য সরকারের প্রচেষ্টা চলছে।
ড. হাছান মাহমুদ আরও জানান, বিচ্ছিন্নভাবে এসব অপপ্রচার চলছে না; বিএনপি-জামাত এবং তাদের অনুসারীরাই পরিকল্পতিভাবেই তা করছে।

বাংলাটিভি/শহীদ

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button