বাংলাদেশজনদুর্ভোগ

ভারতফেরত দু’জনের করোনার ধরণ বোঝা যাবে জিনোম সিকোয়েন্সের পর

মহাখালিতে ডিএনসিসি হাসপাতালে চিকিৎসারত ভারত থেকে আসা দুই করোনা রোগীর দেহে পাওয়া ভাইরাসটি ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট কিনা তা এখনো নিশ্চিত নয় বলে জানিয়েছেন হাসপাতালের পরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল এ কে এম নাসির উদ্দিন।

রোববার (১৬ মে) দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ তথ্য জানান। তিনি আরো বলেন,দুজনকেই হাসপাতালে আলাদা রাখা হয়েছে। তাদের এখনও অক্সিজেন সাপোর্ট লাগছে না।

তবে জিনোম সিকোয়েন্সের জন্য ওই দুইজনের নমুনা রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর) এ পাঠানো হয়েছে বলে জানান তিনি।

এই দু’জন গত ২৩ এপ্রিল তারিখে ঢাকায় আসার পর ৩০ এপ্রিল তাদের করোনা শনাক্ত হয়, এমনটাই জানিয়েছেন হাসপাতালের পরিচালক। সেক্ষেত্রে তারা দেশে ফেরার পরও আক্রান্ত হয়ে থাকতে পারেন সে কথা উল্লেখ করেন তিনি।এ বিষয়ে জিনোম সিকোয়েন্সের রিপোর্ট পাওয়ার পর নিশ্চিত হওয়া যাবে বলে তিনি জানান।

এদিকে, কোন রোগীর শরীরে বিপজ্জনক ভ্যারিয়েন্টের উপস্থিতি সন্দেহ হলে তাদেরকে ঢাকার বক্ষব্যাধি হাসপাতালে নতুন অ্যাজমা কেন্দ্রে রাখার নির্দেশনা দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর একথা নিশ্চিত করেন বিগ্রেডিয়ার জেনারেল এ কে এম নাসির উদ্দিন।

একইসাথে অসচেতনভাবে ঈদযাত্রার পরে রোগীর সংখ্যা বাড়তে পারে এমন আশংকাও প্রকাশ করেছেন তিনি।

বাংলাটিভি/শহীদ

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button