বাংলাদেশআইন-বিচার

রোজিনা মুক্ত না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে

রোববার সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের জামিন না হলে, সাংবাদিকদের সব সংগঠনের পক্ষ থেকে কঠোর কর্মসূচি দেওয়া হবে।হয়রানি ও নির্যাতনকারীদের বিরুদ্ধে প্রথম আলো কিংবা তার পরিবার মামলা না করলে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি-ডিআরইউর পক্ষ থেকে মামলা করা হবে বলে জানিয়েছেন সংগঠনটির নেতারা।

শুক্রবার (২১ মে) দুপুরে ডিআরইউ প্রাঙ্গণে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির  প্রতিবাদী সমাবেশ থেকে এ ঘোষণা দেওয়া হয়।

সমাবেশে ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের কোষাধ্যক্ষ আজাদ বলেন, আমি সরকারের সদিচ্ছা নিয়ে প্রশ্ন করতে চাই। বিশেষ করে সরকারের চারজন গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রী বলেছেন রোজিনা ইসলাম যেন ন্যায় বিচার পান, তারা তা দেখবেন। কিন্তু আমি তাদের কার্যক্রম নিয়ে সন্দিহান।

আমি দাবি করেছিলাম একটি স্বাধীন ও নিরপেক্ষ তদন্ত কমিটি গঠন করুন। নতুন একটি তদন্ত কমিটি হয়েছে যেটি অত্যন্ত হাস্যকর। কেননা যারা ঘটনা ঘটিয়েছে তাদের নিয়ে তদন্ত কমিটি। আমরা চাই এ কমিটিতে সাংবাদিকরা থাকবে, সরকারের অন্য মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা থাকবে, একটি স্বাধীন তদন্ত কমিটি হবে।

তথ্য আইনে বলা হয়েছে অন্য যেকোনো আইনে যাই থাকুক না কেন এখন থেকে এটি বিধানযোগ্য। অথচ রোজিনার বিরুদ্ধে মামলা হলো একটি ব্রিটিশ আমলের আইনে। এটিতো প্রথম দিনই খারিজ হওয়ার কথা ছিল।

ডিআরইউর সাধারণ সম্পাদক মশিউর রহমান বলেন, রোজিনা ইসলামকে হেনস্তা করা হয়েছে। এজন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কতিপয় কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিরুদ্ধে মামলা করা উচিত। যদি পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা করা না হয়, তবে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির পক্ষ থেকে মামলা করা হবে।সমাবেশে রোজিনা ইসলামের জামিন এবং তার বিরুদ্ধে আনা মামলা প্রত্যাহারেরও দাবি জানানো হয়।  সমাবেশে বক্তারা বলেন, রোজিনা জামিন পেলেই এ আন্দোলন থেমে যাবে না।  রোজিনা ইসলামকে হয়রানি ও নির্যাতনের সঙ্গে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক বিচার নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন অব্যাহত থাকবে বলেও ঘোষণা দেয়া হয়।

ডিআরইউর সহ-সভাপতি ওসমান গণি বাবুলের সভাপতিত্বে সমাবেশে আরও উপস্থিত ছিলেন- সহ-সভাপতি আজমল হক হেলাল, নারী সম্পাদক রীতা নাহার, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মাইদুর রহমান রুবেল, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (একাংশ) সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম, সিনিয়র সাংবাদিক শফিকুল ইসলাম কাজল, সাংবাদিক আশীষ কুমার দে প্রমুখ।

বাংলাটিভি/এস

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button