বাংলাদেশরাজনীতি

ক্লাব-মদ-জুয়া নিয়ে বিতর্কে উত্তপ্ত সংসদ

সম্প্রতি চিত্রনায়িকা পরীমনিকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগের সূত্র ধরে- রাজধানীর বিভিন্ন ক্লাব ও মদ-জুয়া নিয়ে আজ উত্তপ্ত আলোচনায় হয়েছে জাতীয় সংসদে। সরকারী দল আওয়ামী লীগসহ জাতীয় পার্টি, বিএনপি ও তরিকত ফেডারেশনের সংসদ সদস্যদের অনির্ধারিত আলোচনায় পাল্টাপাল্টি বক্তব্যে কিছুক্ষণের জন্য সরব হয় ওঠে সংসদ। সরকারি কর্মকর্তারা কীভাবে এসব বিলাসী ক্লাবের সদস্য হন? এতো টাকাই বা তারা কোথায় পান? এছাড়া ক্লাবে বিক্রি হওয়া মদ কতোটা বৈধ?- এসব প্রশ্নও তোলেন সংসদ সদস্যরা।

স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদ অধিবেশনে দিনের কর্মসূচির শুরুতেই পয়েন্ট অব অর্ডারে ফ্লোর নিয়ে আলোচনার সূত্রপাত করেন জাতীয় পার্টির জ্যেষ্ঠ সংসদ সদস্য মুজিবুল হক চুন্নু। শুরুতেই তিনি প্রশ্ন তোলেন সরকারি কর্মকর্তাদের অভিজাত বিলাসী ক্লাবগুলোর সদস্য হওয়া নিয়ে।

পরে আওয়ামী লীগের এমপি শেখ সেলিম সংসদে ফ্লোর নিয়ে, বাংলাদেশে মদ ও জুয়ার লাইসেন্স দেওয়ার জন্য বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানকে দায়ী করেন।

একই বিষয়ে পাল্টাপাল্টি বক্তব্য দেন বিএনপির হারুনুর রশীদ তরিকত ফেডারেশনের সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভাণ্ডারী।

এরপর জাতীয় পার্টির সদস্য বিরোধী দলীয় প্রধান হুইপ মশিউর রহামান বলেন, মদ বেচা-কেনার বিষয়ে বিদ্যমান আইনের অপব্যবহার করা হচ্ছে।

বাংলাটিভি/ এস

 

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button