দেশবাংলা

ফরিদপুরের বোয়ালমারীতে ১৮ বছর শেকল বন্দি রবিউল

ফরিদপুরের বোয়ালমারীতে রবিউল ইসলাম নামে এক যুবক দেড় যুগেরও বেশী সময় ধরে শেকলে বন্দি জীবন যাপন করছেন।মাত্র ১০ বছর বয়সে মানুষিক ভারসাম্য হারিয়ে,কোমরে লোহার শেকল বাঁধা অবস্থায়,একটি ভাঙ্গা ঘরে বসবাস তার।সন্তানের এমন অবস্থা বাবা-মাকে ব্যথিত করলেও,দারিদ্রতার কারনে নিরুপায় তারা।ছেলেকে স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনতে সমাজের বিত্তবান ও সরকারী সহায়তা চেয়েছেন, স্বজন ও এলাকাবাসী।

ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার ময়না ইউনিয়নের বর্নিরচর পশ্চিমপাড়া গ্রামের কৃষক নুরুল ইসলামের বড় ছেলে,রবিউল। জানা যায়,দশ বছর বয়স পর্যন্ত সুস্থ স্বাভাবিক ছিল এবং হেসে খেলে বেড়াত। তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ার সময়, তার মধ্যে মানসিক ভারসাম্যহীনতা লক্ষ করা যায়। এরপর সামর্থ অনুযায়ী চিকিৎসা করেও, সুস্থ করা যায়নি তাকে।

এরপর থেকে দীর্ঘ প্রায় ১৮ বছর বাড়ির ভাঙ্গা ছোট্ট একটি ঘরে একটি গর্তে, শেকলে বন্দী অবস্থায় পড়ে আছেন রবিউল।সারাদিন হাত দিয়ে মাটি খোঁড়ে।হাঁটতে এবং কথা বলতে পারেনা।শুরুতে চিকিৎসা,ঝাড়ফুঁকসহ নানাভাবে চেষ্টা করলেও,দরিদ্র পরিবারের পক্ষে সম্ভব হয়নি,ভাল চিকিৎসা করানোর।তবে উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে পারলে আবারো হয়তো সুস্থ জীবনে ফিরবে যুবক রবিউল।এমন ধারনা পরিবার ও স্থানীয়দের।

রবিউলকে ভাল পরিবেশে রাখার জন্য একটি পাকা ঘর নির্মাণের পাশাপাশি,তার সু-চিকিৎসার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থার আশ্বাস দিয়েছে,উপজেলা প্রশাসন।

দীর্ঘ ১৮ বছর ধরে অমানবিক জীবন যাপন করা রবিউলের সু-চিকিৎসায়, প্রশাসনের পাশাপাশি সমাজপতি ও বিত্তবানরা এগিয়ে আসবে এমন প্রত্যাশা সবার।

ডেস্ক রিপোর্ট/বাংলা টিভি/এস

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button