অপরাধবাংলাদেশ

পাওনা টাকা চাওয়ার জেরে চাঁদপুরের ব্যবসায়ী নারায়ণ খুন হন: সিআইডি

পাওনা টাকা চাওয়ার জের ধরে চাঁদপুরে মিষ্টি ব্যবসায়ী নারায়ণ ঘোষকে হত্যা করেছে সেলুন কর্মচারী রাজু চন্দ্র শীল নামে এক ব্যক্তি। সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর সিআইডি সদর দপ্তরে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়।

রোববার সিলেট থেকে অভিযুক্ত রাজুকে গ্রেপ্তার করা হয় জানিয়ে সিআইডি পক্ষ থেকে আরো বলা হয় প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ব্যবসায়ী নারায়ণ চন্দ্রকে একাই হত্যা করার কথা স্বীকার করেছে সেলুন কর্মচারী রাজু চন্দ্র শীল।

সিআইডি বলছে, প্রায় দুই মাস আগে নারায়ণের কাছ থেকে টাকা ধার নেয় অভিযুক্ত রাজু। পরে পাওনা টাকা ফেরত দিতে রাজুকে বারবার তাগাদা দেন নারায়ণ চন্দ্র। গত ১৬ সেপ্টেম্বর রাতে পাওনা টাকা চাইতে গেলে কথা-কাটাকাটির একপর্যায়ে তাকে ক্ষুর দিয়ে আঘাত করে রাজু।

নিহতের ছোট ছেলে রাজু ঘোষ জানান, বাবা অনেক দিন ধরে পাইকারিতে দই, মিষ্টি বিক্রি করতেন। বুধবার সন্ধ্যায় তিনি টাকা সংগ্রহ করতে বাজারে যান। এরপর আর বাড়ি ফেরেননি। সকালে খবর পাই বাবা আর নেই।

বিপনীভাগ বাজারের নাইট গার্ড মো. ইসমাইল বকাউল জানান, বুধবার রাত ২টার দিকে কৃষ্ণ কর্মকার সেলুনের কর্মচারী রাজু শীল দোকান খুলে একটি বস্তা নিয়ে আবার দোকানে ঢোকেন। দূর থেকে তিনি জিজ্ঞেস করলে রাজু জানান, সামনে পূজা তাই দোকান পরিষ্কার করছেন। কিছুক্ষণ পর রাজু বস্তাটি টেনেহিঁচড়ে পাবলিক টয়লেটের কাছে নিয়ে যান। এবারও জিজ্ঞেস করলে তিনি জানান, দোকানের ময়লা-আবর্জনা পাবলিক টয়লেটের কাছে ফেলে দিচ্ছেন। এরপর ভোর চারটায় রাজু শীল সেলুন বন্ধ বেরিয়ে যান।

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার সকাল ৭টায় শহরের বিপনীবাগ বাজারের মেসার্স শরীফ স্টীল ওয়ার্কশপের কারখানার পাশ থেকে নারায়ণ ঘোষ (৬০) নামের এক মিষ্টি ব্যবসায়ীর বস্তাবন্দি গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। ওই ঘটনার পর থেকে ঘটনাস্থলে পাশের কৃষ্ণ কর্মকারের সেলুনের কর্মচারী রাজু শীল পলাতক ছিল। ওই সেলুন থেকে হত্যার আলামত সংগ্রহ করে পুলিশ ও পিবিআই। পুলিশের ধারণা, এ সেলুনেই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা সংঘটিত হয়েছে।

নিহত নারায়ণ ঘোষ পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের নতুনবাজার ঘোষপাড়ার মৃত যোগলকৃষ্ণা ঘোষের ছেলে। তার ২ ছেলে ও ১ মেয়ের রয়েছে। তিনি পাইকারিতে দই-মিষ্টি বিক্রি করতেন।

বাংলাটিভি/ সাকিব

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button