fbpx
বাংলাদেশআওয়ামী লীগরাজনীতিসরকার

মালয়েশিয়ায় কর্মী প্রেরণের মধ্য দিয়ে ‍শুরু হচ্ছে ডাটা ব্যাংকের কার্যক্রম: প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী

মালয়েশিয়ায় কর্মী প্রেরণের মধ্য দিয়ে, বাংলাদেশে ‍শুরু হচ্ছে ডাটা ব্যাংকের কার্যত্রম। এ তথ্য জানিয়েছেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমেদ।

সকালে রাজধানীর নিজ মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে,আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবস উপলক্ষ্যে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী আরো বলেন, ডাটা ব্যাংক কার্যত্রম চালু হলে, প্রবাসী কর্মী পাঠাতে অতিরিক্ত খরচ,দালালদের দৌরাত্ম, সবকিছুই নিয়ন্ত্রণে চলে আসবে। মন্ত্রী বলেন, প্রবাসীদের দক্ষ কোরে গড়ে তুলতে কাজ করছে সরকার। বিদেশে কর্মী পাঠাতে কোন সিন্ডিকেট রাখা হবে না বলেও জানান মন্ত্রী।

বিমানের ভাড়াসহ প্রবাসী শ্রমিকদের ভোগান্তি নিয়ে প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী ইমরান আহমেদ বলেছেন,আমাদের মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে কোনো ভোগান্তির সৃষ্টি করা হয়নি।’ মন্ত্রী তাঁর মন্ত্রণালয়ের তৎপরতা নিয়ে বলেন, ‘সৌদিতে কোয়ারেন্টিনের ব্যাপারে আমরাই সিদ্ধান্ত নিয়ে ২৫ হাজার টাকা ভর্তুকি দিয়েছি। পিসিআর টেস্টের ফি ১ হাজার ৬০০ টাকা আমরা বহন করব বলে ঘোষণা দিয়েছি।

তিন বছর বন্ধ থাকার পর খুলতে যাচ্ছে মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার। এ লক্ষ্যে দুই দেশের মধ্যে সমঝোতা স্বাক্ষর হতে যাচ্ছে রোববার। আজ সকালের সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকেরা এ ব্যাপারে জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, ‘পুরো ডিটেইলস পাবেন না এখন। একটা বিষয় আছে যে ডকুমেন্ট স্বাক্ষর না হওয়া পর্যন্ত এটার ডিটেইলগুলো কিন্তু জানানোর কথা নয়। আমি যা বলব, ভাসা-ভাসা বলব। স্বাক্ষর করার পর জিজ্ঞাসা করলে ডকুমেন্টে কী আছে, তা আমি বলব। কারণ, দুই দেশের মধ্যে সমঝোতা, এখানে কিন্তু কনফিডেন্সিয়ালিটির একটা বিষয় আছে।

রিক্রুটিং এজেন্সি, দালালের প্রতারণা ও সিন্ডিকেট বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘আমরা জানি, অতীতে অনেক কিছু হয়েছে। মন্ত্রিত্ব পাওয়ার পর থেকে এই অতীতকে দূর করার চেষ্টা করে এসেছি। আমি কিন্তু কোনো সিন্ডিকেটের পক্ষপাতী নই। এর মধ্যেই আমাদের কানে চলে আসে যে আমরা কত কিছু করছি। কে পয়সা কোথায় খাচ্ছে, কে দুবাইতে গিয়ে পয়সা খাচ্ছে। এর মধ্যে আমার নামও আসছে। এ ধরনের রিউমার পুরো প্রক্রিয়াকে বিতর্কিত করার জন্য করা হয়।’ কোনো ধরনের গুজবে কান না দেওয়ার আহ্বান জানান ইমরান আহমদ।

মালয়েশিয়ায় যাওয়ার পর নিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান বদলানো যাবে কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘যেই দেশ মানুষ নেবে, সেই দেশের আইন মোতাবেক চলতে হবে। ওরা অনুমতি দেবে কি না, সেটা ওদের ব্যাপার। যদি অনুমতি না দেয়, আমার যদি পছন্দ না হয়, তাহলে আমি যাব না।

মালয়েশিয়ায় যাওয়ার খরচ এখনো নির্ধারণ করা হয়নি জানিয়ে তিনি বলেন, আগে যা লাগত, তার চেয়ে অনেক কম খরচ নেওয়া হবে।

ওমানসহ কয়েকটি দেশে শ্রমিকদের পাসপোর্ট নবায়ন না হওয়ার বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে এ বিষয়ে সরাসরি লিখিত অভিযোগ করতে ভুক্তভোগীদের পরামর্শ দেন মন্ত্রী।

সৌদি আরবসহ বিভিন্ন দেশে যেতে শ্রমিকদের মন্ত্রণালয়ের নির্ধারণ করা খরচের চেয়ে কয়েক গুণ বেশি খরচের বিষয়ে মন্ত্রণালয়ের সচিব আহমেদ মুনিরুছ সালেহীন এখন পর্যন্ত একটিও লিখিত অভিযোগ পাননি বলে জানান। শোনা কথা নয়, লিখিত অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

এর আগে লিখিত বক্তব্যে সচিব বলেন, বাংলাদেশ থেকে কর্মী প্রেরণ বিষয়ে সম্প্রতি গ্রিসের সঙ্গে বাংলাদেশের একটি আগ্রহপত্র স্বাক্ষরিত হয়েছে। একইভাবে আলবেনিয়া, মাল্টা ও বসনিয়ার সঙ্গেও কর্মী পাঠানোর জন্য চুক্তি স্বাক্ষরের অপেক্ষায় রয়েছে। এ ছাড়া নতুন শ্রমবাজার হিসেবে কম্বোডিয়া, উজবেকিস্তান, পোল্যান্ড, হাঙ্গেরি, রোমানিয়াসহ আফ্রিকা মহাদেশের কয়েকটি দেশ এবং জাপান, চীন, ক্রোয়েশিয়া, সেনেগাল, বুরুন্ডি, সেশেলস, মালয়েশিয়ার সারওয়াক প্রভৃতি দেশে কর্মী প্রেরণ শুরু করা হয়েছে।

১৮ ডিসেম্বর প্রতিবছর বিশ্বব্যাপী আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবস হিসেবে পালন করা হয়। ‘শতবর্ষে জাতির পিতা, সুবর্ণে স্বাধীনতা, অভিবাসনে আনব মর্যাদা ও নৈতিকতা’ প্রতিপাদ্য নিয়ে দিবসের নানা কর্মসূচি পালন করবে প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়।

বাংলাটিভি/শহীদ

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button