fbpx
বাংলাদেশঅন্যান্যআইন-বিচার

পদ নিয়ে হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত চেয়ে আপিল নিপুণের

KSRM

জায়েদ খানের প্রার্থিতা বাতিলের সিদ্ধান্ত স্থগিত করে হাইকোর্ট আদেশের বিরুদ্ধে এবার আপিল করেছেন চিত্রনায়িকা নিপুণ। মঙ্গলবার সকালে এ আপিল দায়ের করা হয়েছে বলে সংবাদমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন নিপুণের আইনজীবী ব্যারিস্টার মোস্তাফিজুর রহমান।

এ সময় তিনি বলেন, আমরা আপিল বিভাগে আবেদন করেছি। আপিল বিভাগের চেম্বার আদালতে আজ এ বিষয়ে শুনানি হতে পারে। চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ১৭তম দ্বি-বার্ষিক নির্বাচনকে ঘিরে এফডিসির জল কম ঘোলা হয়নি। সমিতির সাধারণ সম্পাদকের পদ নিয়ে জটিলতা কাটেনি এখনো।

শনিবার (৫ জানুয়ারি) নিপুণ আক্তারকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সাধারণ সম্পাদক ঘোষণা করেন আপিল বোর্ডের চেয়ারম্যান সোহানুর রহমান সোহান। তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় তার প্রার্থিতা বাতিল করে বোর্ড।

প্রার্থিতা বাতিল করে দেওয়া আপিল বোর্ডের সিদ্ধান্ত চ্যালেঞ্জ করে সোমবার (৭ ফেব্রুয়ারি) বিচারপতি মামনুন রহমান ও বিচারপতি খোন্দকার দিলীরুজ্জামানের হাইকোর্ট বেঞ্চে এ আবেদন করেন জায়েদ খান। শুনানি শেষে জায়েদ খানের প্রার্থিতা বাতিলের সিদ্ধান্ত স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে প্রার্থিতা বাতিলের সিদ্ধান্ত কেন অবৈধ হবে না, তা জানতে চেয়ে এক সপ্তাহের রুল জারি করেন আদালত।

আবেদনের বিষয়ে জানতে জায়েদ খানের ব্যক্তিগত নাম্বারে একাধিকবার ফোন করে পাওয়া যায়নি তাকে। তবে এর আগে শনিবার (৫ জানুয়ারি) নিপুণকে জয়ী ঘোষণার পর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় এ অভিনেতা সময় সংবাদকে বলেছিলেন, পুরাটাই হাস্যকর। তারা কোনো নিয়মকানুন মানে নাই। এ রায় ঘোষণার অধিকার তো আপিল বোর্ডের নেই। নিজেরা নিজেদের মতো যা ইচ্ছা করছে, রায় ঘোষণা করছে, প্রার্থিতা ঘোষণা করে দিচ্ছে যা তা অবস্থা। আমি তাদের আইনি নোটিশ দিয়েছি। এবার তাদের আইনি ব্যবস্থাও নেব।

এরপর নিজেকে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দাবি করেন জায়েদ খান। সাধারণ সম্পাদকের পদ ফিরে পেতে মামলা করার কথাও বলেছিলেন তিনি। রোববার (৬ ফেব্রুয়ারি) সময় সংবাদকে তিনি বলেন, আমি ভোটারদের ভোটে নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক। আইন অনুযায়ী আমি শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক।

তিনি আরও বলেন, শিল্পীদের ভোটে আমি নির্বাচিত হয়ে সাধারণ সম্পাদক হয়েছি। ১৭৬ জন শিল্পীর ভোট আমি পেয়েছি। তাদের ভোটের মূল্য আমি দেব। আমি আইনি পদক্ষেপ নিচ্ছি।

বাংলাটিভি/জাবেদ

 

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button