fbpx
ফুটবলখেলাধুলা

অবশেষে দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজে সাকিব, যোগ দেবেন কালই

KSRM
সাকিব আল হাসান আর আলোচনা—এ দুটি ব্যাপার যেন এক সুতোয় গাঁথা। এবারও ব্যতিক্রম হয়নি। দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে যাবেন না বলে নানা নাটকের জন্ম দিয়েছেন সাকিব। বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারকে ছাড়া বাংলাদেশ দলও চলে গেছে দক্ষিণ আফ্রিকায়। কিন্তু, পুরো দল দেশ ছাড়ার পর নাটকে নতুন মোড় নিল। নিজের সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছেন তিনি। অবশেষে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে যাচ্ছেন তিনি। আগামীকাল রোববার দক্ষিণ আফ্রিকার জন্য ঢাকা ছাড়বেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার।

আজ শনিবার তৃতীয় ধাপে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে চলে গেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। এর মধ্যেই আজ বিসিবি’র সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের সঙ্গে জরুরি বৈঠকে বসেন সাকিব। বৈঠকে নিজের সিদ্ধান্তে পরিবর্তন আনেন অভিজ্ঞ এ অলরাউন্ডার।

বৈঠক শেষে গণমাধ্যমকে খবরটি নিশ্চিত করেছেন বিসিবি’র সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। বিসিবিপ্রধান জানান, দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে খেলতে আগামীকালই ঢাকা ছাড়বেন দেশসেরা ক্রিকেটার। সাকিব নিজেও সিদ্ধান্ত বদলের খবরটি সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন।

আজ সাকিব ও নাজমুল হাসান পাপন দুজনেই দুপুরে মিরপুর শেরেবাংলায় আসেন। প্রথমে শেরেবাংলায় পা রাখেন বিসিবিপ্রধান। তাঁর কিছুক্ষণ পর বিসিবিতে আসেন সাকিব। এরপর দুজনেই বৈঠকে বসেন।

বৈঠক শেষে সাকিব বলেন, ‘পাপন ভাইয়ের সঙ্গে পরশু রাতেও কথা হয়েছে, আজও উনার সঙ্গে কথা হয়েছে। যেহেতু আমি তিন ফরম্যাটেই আছি, তিন ফরম্যাটেই সব সময় অ্যাভেইলেবল থাকব। বোর্ড সিদ্ধান্ত নেবে, কখন আমাকে বিশ্রাম দেওয়া দরকার। দক্ষিণ আফ্রিকা সফরেও আমি অ্যাভেইলেবল।’

নাজমুল হাসান বলেন, ‘সাকিব (আফগানিস্তানের বিপক্ষে) তৃতীয় ওয়ানডের দিন আমাকে বলেছিল, সে খেলবে দক্ষিণ আফ্রিকায়। কিন্তু, দুবাই যাওয়ার আগে আপনাদের জানায়, মানসিকভাবে ফিট নয়। সেখানে যাওয়ার পরও সে জানাল, দক্ষিণ আফ্রিকায় যাবে না। সেজন্য আমরাও তাকে ছুটি দিলাম। সে জানিয়েছে, সে মানসিকভাবে কিছুটা ডিস্টার্বড। এটা হতেই পারে। অনেকেরই হয় এটা। এরপর দেশে ফিরেই আমার সঙ্গে আলোচনার পর জানিয়েছে, সে সব ফরম্যাটেই খেলতে চায়। দক্ষিণ আফ্রিকাতেও খেলতে চায়। সে কাল রাতেও আমাকে জানিয়েছে, সে খেলতে চায়। আজ আলোচনাতেও সিদ্ধান্ত হয়েছে সে সব ফরম্যাটে খেলবে। কাল যাবে দক্ষিণ আফ্রিকাতে। আমার মনে হয়, এসব নিয়ে আলোচনা না করে তাঁকে মানসিকভাবে সাপোর্ট দিতে হবে।’

আগামী শুক্রবার থেকে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ শুরু হবে। সিরিজের আগে মাত্র চার দিন অনুশীলন নেওয়ার সুযোগ পাবেন ওয়ানডে দলের সদস্যেরা। দেরিতে যাওয়ায় সাকিব অনুশীলনের সুযোগ পাবেন আরো কম। তিন ম্যাচ সিরিজের বাকি দুই ওয়ানডে ২০ ও ২৩ মার্চ। ওয়ানডে শেষে শুরু হবে টেস্ট সিরিজ। দুটি টেস্ট হবে ৩১ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল এবং ৮ থেকে ১২ এপ্রিল।

তানজিল/ বাংলা টিভি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button