আইন-বিচার

মঈনুল-জাফরুল্লাহর জামিন স্থগিতের শুনানি সোমবার

||বাংলা টিভি অনলাইন||

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন এবং গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর হাইকোর্টের দেয়া জামিন স্থগিতের আবেদন শুনানি পিছিয়ে আগামী সোমবার দিন ধার্য করেছেন আদালত।

রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের শুনানি নিয়ে বৃহস্পতিবার দায়িত্বপ্রাপ্ত মোহাম্মদ ইমান আলীর নেতৃত্বে ছয় সদস্যের আপিল বেঞ্চ এ দিন ধার্য করেন।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। অন্যদিকে ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন ও ডা. জাফরুল্লাহের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন, খন্দকার মাহবুব হোসেন, মাহবুব উদ্দিন খোকন, মো. মাসুদ রানা, এ কে এম এহসানুর রহমান প্রমুখ।

বৃহস্পতিবার (২৫ অক্টোবর) রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনটির ওপর শুনানির দিন নির্ধারণ ছিল। কিন্তু শুনানি না করে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম আপিল আদালতকে বলেন, ‘আমরা হাইকোর্টের জামিন আদেশের কপি হাতে পেয়েছি। এখন এ বিষয়ে নিয়মিত আপিল করতে চাই। তাই আবেদনটি আজ শুনানির জন্য নট টু ডে (আজ নয়) আদেশ দিন।’

এরপর আদালত নট টু ডে আদেশ দিয়ে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনটির শুনানি পিছিয়ে আগামী সোমবার (২৯ অক্টোবর) দিন নির্ধারণের আদেশ দেন।

এর আগে গত ১৬ অক্টোবর টকশোতে সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টিকে নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করেন ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন। এ ঘটনায় ২১ অক্টোবর ঢাকার অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে মাসুদা ভাট্টি এবং জামালপুর আদালতে যুব মহিলা লীগের জামালপুর শাখার আহ্বায়ক ফারজানা ইয়াসমীন লিটা ২০ হাজার কোটি টাকার মানহানির অভিযোগে মামলা করেন। এ মামলায় আদালত পৃথকভাবে মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। এ আদেশের পর ওইদিনই হাইকোর্টে হাজির হয়ে জামিন নেন মইনুল হোসেন। পরে সেই জামিন স্থগিত চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষ আবেদন করে।

এদিকে মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে দেশের বিভিন্ন স্থানে আরও কয়েকটি মামলা হয়েছে। তবে রংপুরে দায়ের করা মামলায় গত ২২ অক্টোবর পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। মঙ্গলবার তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত।

এদিকে জমি দখল, চাঁদাবাজির অভিযোগে জাফরুল্লাহ চৌধুরীর বিরুদ্ধে আশুলিয়া থানায় পৃথক তিনটি মামলা হয়েছে। এর মধ্যে জমি দখল ও এক কোটি টাকা চাঁদাবাজির অভিযোগে গত ১৫ অক্টোবর মানিকগঞ্জ জেলার হরিরামপুরের মোহাম্মদ আলী এবং এক কোটি টাকা চাঁদাবাজির অভিযোগে ১৯ অক্টোবর আশুলিয়ার ঘোড়াপীর মাজার এলাকার হাসান ইমাম বাদী হয়ে জাফরুল্লাহ চৌধুরীসহ বেশ কয়েকজনকে আসামি করে আশুলিয়া থানায় পৃথক দুটি মামলা করেন।

এ দুই মামলায় জাফরুল্লাহ চৌধুরী ২১ অক্টোবর হাইকোর্ট থেকে জামিন নেন। এদিনই আরেকটি মামলা করেন সেলিম আহমেদ। এ মামলায়ও ২২ অক্টোবর হাইকোর্টে হাজির হয়ে জামিন নেন জাফরুল্লাহ চৌধুরী। এর মধ্যে একটি মামলায় জামিন স্থগিত চেয়ে আবেদন করে রাষ্ট্রপক্ষ।

বাংলাটিভি/প্রিন্স

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close