প্রধানমন্ত্রীবাংলাদেশ

শহীদ বুদ্ধিজীবীদের প্রতি রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ও সর্বস্থরের জনতার শ্রদ্ধা

১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধে চূড়ান্ত বিজয় অর্জনের মাত্র দু’দিন আগে নিজেদের পরাজয় বুঝতে পেরে জাতিকে মেধাশূন্য করার উদ্দেশে ১৪ই ডিসেম্বর বেছে বেছে বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, সাংবাদিক, চিকিৎসক, দার্শনিক ও শিল্পীদের বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়। স্বাধীনতা যুদ্ধে চূড়ান্ত বিজয় অর্জনের পরে রায়েরবাজার, মিরপুরসহ বধ্যভূমিতে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় পাওয়া যায় দেশের খ্যাতিমান বুদ্ধিজীবীদের ক্ষতবিক্ষত মরদেহ।

প্রতি বছর ১৪ ডিসেম্বর শোক আর বিনম্র শ্রদ্ধায় শহীদ বুদ্ধিজীবীদের স্মরণ করে আসছে দেশবাসী। রাজধানীর মিরপুর রায়েরবাজারসহ সারাদেশে ফুল আর জাতীয় পতাকা হাতে নিয়ে তাদের স্মরণ করছেন দেশের সর্বস্তরের জনগণ।

শহীদ বুদ্ধিজীবীদের স্মরণে মিরপুরে শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ আব্দুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষ্যে আজ শুক্রবার সকাল সাতটায় শ্রদ্ধা জানান তাঁরা। এ সময় শহীদের স্মরণে কিছুক্ষণ নীরবতা পালন করেন রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী। এ সময় বিউগলে করুণ সুর বাজানো হয়।

রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা নিরেবদন পর্ব শেষে সর্বসাধারণের জন্য খুলে দেওয়া হয় স্মৃতিসৌধ এলাকা। জাতীয় পতাকা আর শ্রদ্ধার ফুল হাতে নানা বয়সের হাজারো মানুষ জড়ো হন শহীদ বেদীতে।রায়েরবাজার বধ্যভূমি স্মৃতিসৌধের শহীদ বেদীও সকাল থেকে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন এবং সর্বস্তরের মানুষের ফুলে ফুলে ভরে ওঠে।তাদের স্মরণ করতে মিরপুরে শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে এসেছেন শহীদদের পরিবারের সদস্যরা।

জাতীর দাবি সর্বস্থরের মানুষ শহীদ বুদ্ধিজীবী ঘাতক, তাদের পৃষ্ঠপোষক, সমর্থকদের ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যানের।

বাংলাটিভি/এমআরকে

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close