অন্যান্যঅপরাধবাংলাদেশ

টেকনাফে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ৩ রোহিঙ্গা

কক্সবাজারের টেকনাফে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৩ রোহিঙ্গা নিহত হয়েছেন। পুলিশের দাবি নিহতরা অপহরণকারী চক্রের সদস্য ও সন্ত্রাসী।

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে টেকনাফ উপজেলার লেদা রোহিঙ্গা ক্যাম্পের পেছনের পাহাড়ের পাদদেশে এই বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন-কক্সবাজারের উখিয়া থাইংখালি ১৩ রোহিঙ্গা ক্যাম্পের সি-১ ব্লকের বাসিন্দা নূর মোহাম্মদের ছেলে শামসুল আলম (৩৫), সি-২ ক্যাম্পের বাসিন্দা মোক্তার আহমদের ছেলে নুর আলম (২১) ও ও টেকনাফের লেদা রোহিঙ্গা ক্যাম্পে টেকনাফ উপজেলার লেদা রোহিঙ্গা ক্যাম্প সি- ব্লকের বাসিন্দা আজিজুর রহমানের ছেলে হাবিব (২০)।

টেকনাফ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) প্রদীপ কুমার দাস বলেন, সম্প্রতি তিন বছরের শিশুকে অপহরণ করে ৫ লাখ টাকা দাবি করেছিল নিহত তিন রোহিঙ্গা। পরে পুলিশের অভিযানে বেগতিক দেখে অপহরণকারীরা ওই শিশুকে ফেরত দেয়।

তিনি আরো বলেন, গতরাতে অপহরণকারী চক্রের ওই সদস্যরা টেকনাফের লেদা রোহিঙ্গা ক্যাম্পের পাশে পাহাড়ে অবস্থান করছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সেখানে অভিযান চালায় পুলিশ। এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে সন্ত্রাসীরা গুলি চালায়। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে। গোলাগুলির এক পর্যায়ে সেখানে অবস্থানরত সন্ত্রাসী দলের অন্যরা পালিয়ে যায়। তবে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় সেখানে এই তিনজন রোহিঙ্গাকে পড়ে থাকতে দেখা যায়। তাদের উদ্ধার করে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

ওসি প্রদীপ বলেন, ওই ঘটনায় পুলিশের তিনজন সদস্য আহত হয়েছেন। তাদের চিকিৎসা দিয়ে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে তিনটি দেশিয় এলজি বন্দুক, ৮ রাউন্ড গুলি ও ১১ রাউন্ড গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়েছে। নিহতদের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

রাজ/বাংলাটিভি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close