অপরাধবাংলাদেশ

বৃহত্তর নোয়াখালীতে ছেলে ধরা আতঙ্ক !

বৃহত্তর নোয়াখালীর বিভন্ন উপজেলায় ছেলে ধরা আতঙ্ক বিরাজ করছে। ‍দেশের‌ কয়েকটি সেতু নির্মানের সময় রক্ত লাগবে, যার জন্য শিশুদের বলি দেয়া হবে, বিগত এমন একটি গুজব ছড়িয়ে পড়েছে বৃহত্তর নোয়াখালীর ফেনী, নোয়াখালী ও লক্ষীপুর জেলার বিভিন্ন স্থানে । এর পর থেকেই সর্বত্র ছেলে ধরা আতঙ্ক বিরাজ করছে। এরই মধ্যে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের মাদ্রাসা শিক্ষার্থী মুহাম্মদ মুহাননানকে(১১) হাত ও পায়ের রগ কেটে অপহরণের চেষ্টা ঘটনায় আতঙ্ক আরো বাড়িয়ে দিয়েছে।

জানা গেছে, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার বসুরহাট পৌরসভা ৭নং ওয়ার্ডের মাওলানা শামছুল হক বাড়ির ওমর ফারুকের ছেলে ও ফেনীর দাঁগনভূঁইয়া উপজেলার আশরাফুল উলুম মাদ্রাসার ছাত্র মুহাম্মদ মুহাননানকে(১১) হাত ও পায়ের রগ কেটে অপহরণের চেষ্টা করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছে পরিবারের সদস্যরা।

 মুহাননানের ফুফু ফাতেমা বেগম জানান, আমার ভাতিজা রাত ৮ টার দিকে মাদ্রাসার সামনে  বের হলে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা অন্ধকারে তার চোখ বেঁধে এবং মুখ চেপে ধরে তার হাত ও পায়ের রগ কেটে অপহরনের চেষ্টা করে। ওই সময় তার চিৎকারে স্থানীয়া এগিয়ে এলে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়। তাকে উদ্ধার করে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হয়।’

     কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত মেডিকেল অফিসার শওকত আল ইমরান জানান, হামলার শিকার শিশুকে হাত ও পায়ের কিছু অংশ কাটা অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়েছে। তাকে প্রয়াজনীয় চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

    দাঁগনভূঁইয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জানান, এ ঘটনায় মাদরাসা শিক্ষার্থী মুহাননানের পরিবার এখনো থানায় কোন অভিযোগ করেনি।

    তবে সোমবার দুপুরে নোয়াখালী পুলিশ সুপার মো: আলমগীর  হোসেন জানান, এটি একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা, আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই।  আমরা বিষয়টির দিকে নজর রাখছি।

বাংলা টিভি/ ইয়াকুব নবী ইমন

নোয়াখালী প্রতিনিধি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close