ক্রিকেটখেলাধুলা

আজ পর্দা নামছে বিশ্বকাপ ক্রিকেটের দ্বাদশ আসরের

অবশেষে ইংল্যান্ড-নিউজিল্যান্ড ফাইনাল দিয়ে পর্দা নামছে ১২তম বিশ্বকাপের। লর্ডসে টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে নিউজিল্যান্ড। অবশ্য আজ টস অনুষ্ঠিত হয়েছে ১৫ মিনিট দেরিতে।

শিরোপা জেতার মিশনে স্বাগতিক ইংল্যান্ডের মুখোমুখি নিউজিল্যান্ড। বিশ্বআসরে এর আগে ইংলিশরা তিনবার ও ব্ল্যাকক্যাপসরা একবার ফাইনালে খেললেও শিরোপার দেখা পায়নি কেউই। তাই এবার বিশ্ব পাচ্ছে নতুন এক চ্যাম্পিয়নকে।  ক্রিকেটের তীর্থস্থান খ্যাত লর্ডসে ফাইনাল ম্যাচটি শুরু হয়েছে।

২৭ বছরের অবসান শেষে বিশ্বকাপের ফাইনালে ইন করলো ইংল্যান্ড।  তাই যথার্থই হয়েছে এবারের মোটো, আইএম ইন।

মানসিক বাঁধার দেয়াল গুঁড়িয়ে ১৯৯২ আসরের পর ফাইনালের মঞ্চে পা রাখা ক্রিকেটের জনকরা, গ্রুপ পর্বে কিছুটা উত্থান-পতনের মধ্য দিয়ে গেলেও লক্ষ্যচ্যুত হয়নি। শেষ দুই ম্যাচে ভারত ও নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে সেমিতে উঠে আসে ইংলিশরা। যেখানে ফাইনালে যাওয়ার লড়াইয়ে অস্ট্রেলিয়াকে হারায় থ্রি-লায়ন্সরা।

এবারের আসরে শুরু থেকেই ফেভারিট হিসেবে উচ্চারিত হচ্ছিলো ইংল্যান্ডের নাম। বোলিং কি ব্যাটিং, কোনো বিভাগেই চিড় ধরে নি তাদের। সাম্প্রতিক পারফম্যান্সে বিশ্বআসরের প্রথম ট্রফি ঘরে তোলার দাবিদারও তারা।  তবে ইংলিশ কাপ্তান ইয়ুন মরগানের কাছে ট্রফি না জেতা পর্যন্ত উচ্ছ্বাসে গা হেলানো যাবেনা। অথচ সেমিফাইনালের আগেও এই ইংল্যান্ডকে নিয়ে কত শঙ্কা। প্রতিপক্ষ অস্ট্রেলিয়া এর আগে, বিশ্বকাপের সাত সেমিফাইনাল খেলে হারেনি কোনোটিতে।  সবকিছুরই একটা শেষ থাকে।  এবার না হয় হলো…।

নিউজিল্যান্ড সেমিফাইনালের দল হিসেবে পরিচিত ছিল বহুদিন। কিন্তু ২০১৫ সালের বিশ্বকাপে সেমির বৃত্ত ভেঙ্গে ফাইনাল খেলা দলটিকে হারিয়ে দেয় অস্ট্রেলিয়া। সেই হারে থেমে যায়নি কিউইরা। দারুণ খেলে টানা দ্বিতীয়বার ফাইনালের টিকিট পেয়েছে তারা। ভারতের বিপক্ষে পাওয়া জয়, বাড়তি অনুপ্রাণিত করবে কিউইদের।  সেই সঙ্গে গ্রুপ পর্বে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে হারের প্রতিশোধ মিশন তো থাকছেই।  তবে ইংল্যান্ডকে হারিয়ে শিরোপা জিততে হলে ব্ল্যাক ক্যাপসদের খেলতে হবে সেরাটা নিংড়ে।

এ নিয়ে চতুর্থবার বিশ্বকাপে ফাইনালে উঠলো ইংল্যান্ড। এর আগে ১৯৭৯, ১৯৮৭ ও ১৯৯২ সালে ফাইনালে খেলা দলটি, ট্রফি স্পর্শ করতে ব্যর্থ প্রতিবারই। অতীতের পরিসংখ্যান ভুলে নতুন ইতিহাস গড়তে রোববারের ফাইনালে স্বাগতিকদের জন্য নতুন এক চ্যালেঞ্জ, যেখানে কোনো ছাড় দিতে রাজি নয় ব্ল্যাক ক্যাপসরাও।

বাংলাটিভি/ রিয়েল

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close