অপরাধবাংলাদেশ

দালাল ধরে পাসপোর্ট বানাচ্ছে রোহিঙ্গারা

ইয়াকুব নবী, নোয়াখালী : নোয়াখালী আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস থেকে পাসপোর্ট করা ৩ রোহিঙ্গা যুবক বিদেশে যাওয়ার প্রস্তুতিকালে গ্রেফতারের ঘটনায় তোলপাড় চলছে সারাদেশে। এতো সহজে কিভাবে রোহিঙ্গারা পাসপোর্ট পেলো, তা খতিয়ে দেখতে তদন্তে নেমেছে প্রশাসন। ইতোমধ্যে ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশের বিশেষ শাখার ২ সদস্যকে সাময়িক বহিস্কারও করা হয়েছে।

গত ৫ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রামের আকবরশাহ থানা পুলিশের হাতে গ্রেফতার হন তিন রোহিঙ্গা যুবক। এসময় তারা পুলিশকে জানায়, দালাল ধরে নোয়াখালী আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস থেকে পাসপোর্ট করিয়েছে তারা। তুরস্ক যাওয়ার আশায় তারা ঢাকা যাচ্ছিলেন ভিসার আবেদন করতে। এতো দিন তারা কক্সবাজারের উখিয়ায় হাকিমপাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ছিলো।

গ্রেফতার মোহাম্মদ ইউসুফ ও মোহাম্মদ মুসার পাসপোর্ট ইস্যু করা হয়েছে ২০১৮ সালের ২৪ ডিসেম্বর। পাসপোর্টে স্থায়ী ঠিকানা হিসেবে নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলার কাদরা ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের নজরপুর গ্রাম ব্যবহার করা হয়। আর মোহাম্মদ আজিজের নামে পাসপোর্ট ইস্যু করা হয়েছে ২০১৯ সালের ২২ জানুয়ারি। সে তার স্থায়ী ঠিকানায় একই উপজেলা ও একই ইউনেয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের সেনবাগ গ্রাম ব্যবহার করে।

রোহিঙ্গাদের জন্ম নিবন্ধন ও নাগরিকত্ব সনদ দেয়ার বিষয়টি অস্বীকার করে পাসপোর্ট প্রদানে সংশ্লিষ্টদের আরো দায়ীত্বশীল হওয়ার পরামর্শ দেন সেনাবগ ইউপি চেয়ারম্যান, মোহাম্মদ কামরুজ্জামান। এসব অবৈধ পাসপোর্ট করানোর সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবীও জানান তিনি।

এদিকে  নোয়াখালী আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ নুরুল হুদা বলেন, জড়িতদের চিহ্নিত করে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নোয়াখালী পুলিশ সুপার আলমগীর হোসেন বলেন, আমরা তদন্ত শুরু করেছি। এছাড়া সারাদেশের পাসপোর্ট অফিসগুলোতে গোয়েন্দা মোতায়েন করা হয়েছে।

এ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জোর দাবী জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

বাংলাটিভি/ এসনূর

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close