আন্তর্জাতিকইউরোপ

ঐতিহাসিক ঘটনার সাক্ষী চার্লস রাজার ‘প্রাগ‘ শহর

হাসান তামিম : ইউরোপের দেশ চেক প্রজাতন্ত্রের রাজধানী প্রাগ। রাজা ৪র্থ চার্লস প্রাগ দূর্গের টাওয়ারটি স্বর্ণ দিয়ে নির্মাণ করেছিলেন বলে, একে স্বর্নালী শহর বলা হয়। চৌদ্দশত বছর বা তারও আগে নির্মিত, গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনাগুলো নিয়ে দাঁড়িয়ে আছে প্রাচীন এই শহরটি। বিভিন্ন ঐতিহাসিক ঘটনার সাক্ষী হয়ে আছে শহরটি।

চেক প্রজাতন্ত্রের রাজধানী প্রাগ ১৪০০ শতকে রোমান সাম্রাজ্যের গুরুত্বপূর্ন শহর হিসেবে পরিচিত ছিল। এটি ভল্টাভা নদীর তীরে অবস্থিত একটি প্রাচীন শহর। ঐতিহাসিক বোহেমিয়া সাম্রাজ্যের শাসকগন এই শহরকে তাদের রাজধানী হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন ।

প্রাগের রয়েছে নিজস্ব সংস্কৃতি এবং ঐতিহ্য। এ শহরের মূল আকর্ষনের কেন্দ্রবিন্দু হচ্ছে প্রাচীন গির্জা, ঐতিহাসিক বারোক প্যালেস এবং প্রাচীন স্থাপত্য সমূহ। বিভিন্ন দেশের পর্যটক এসব স্থাপত্য এবং ঐতিহাসিক নিদর্শন উপভোগ করতে আসেন।

পর্যটকদের প্রধান আকর্ষন হচ্ছে প্রাগ দূর্গ, যেটি ৯০০ শতকে নির্মিত। পৃথিবীর সবচেয়ে প্রাচীন এবং দীর্ঘতম দূর্গ হিসেবে এ দূর্গ বোহেমিয়া, রোমান এবং অস্ট্রো হাংগেরির রাজার আবাসস্থান হিসেবে পরিচিত ছিল। এছাড়া আছে, ১৪শ শতকের অন্যতম নিদর্শন চার্লস ব্রিজ যা ভলটাভা নদীর ওপর নির্মিত।

পুরোনো শহরের মূল কেন্দ্রে রয়েছে এস্ট্রোনোমিকাল ঘড়ি, যেটি ১৪১০ সালে প্রথম স্থাপিত হয়। তার পাশেই রয়েছে ৯ম শতকে নির্মিত প্রাচীন সেন্ট ভিটাস ক্যাথেড্রেল। এছাড়াও রয়েছে, পুরোনো টাউন স্কয়ার, প্রাগ মিউজিয়াম এবং ড্যান্সিং হাউস। প্রবাসীরা প্রায়ই আসেন প্রাগের এ সৌন্দর্য উপভোগ করতে ।

প্রাচীন শহর প্রাগ পর্যটকদের কাছে ভ্রমনের জন্য অত্যন্ত আকর্ষণীয় একটি স্থান। ভায়োলিনের সুরে সুরে পর্যটকরা উপভোগ করতে পারেন প্রাগের ঐতিহাসিক নিদর্শনগুলো ।

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close