আওয়ামী লীগবিএনপিরাজনীতি

প্রধান চার মেয়র প্রার্থীর হলফনামা

ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে চার মেয়র পদপ্রার্থীর মধ্যে সবচেয়ে সম্পদশালী দক্ষিণের আওয়ামী লীগের মেয়র পদপ্রার্থী শেখ ফজলে নূর তাপস। সবচেয়ে কম সম্পদের মালিক দক্ষিণ সিটিতে বিএনপির ইশরাক হোসেন। সবচেয়ে বেশি ঋণ উত্তরের আওয়ামী লীগের প্রার্থী আতিকুল ইসলামের।

এদিকে, পাঁচ বছরের ব্যবধানে আতিকুলের প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির তাবিথ আউয়ালের আয় ও সম্পদ যেমন বেড়েছে, তেমনি ঋণও বেড়েছে। আওয়ামী লীগ-বিএনপির চার প্রার্থীই উচ্চশিক্ষিত ও সম্পদশালী। ফজলে নূর পেশায় আইনজীবী। বাকি তিনজনই ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত।

নির্বাচন কমিশন (ইসি) সূত্রে এই চার প্রার্থীর হলফনামায় দেখা গেছে। শেখ ফজলে নূর তাপস এলএলবিতে স্নাতক এবং ব্যারিস্টার-অ্যাট ল করেছেন। তিনি সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী এবং আওয়ামী যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা শেখ ফজলুল হক মনির ছেলে। হলফনামার তথ্য অনুসারে, তাঁর বছরে মোট আয় ৯ কোটি ৮১ লাখ ৩৮ হাজার ৪৬ টাকা।

এদিকে, ১৬ প্রতিষ্ঠানের মালিক আতিকের গাড়ি নেই। ঢাকা উত্তরের আওয়ামী লীগের প্রার্থী সাবেক ব্যবসায়ী নেতা আতিকুল ইসলাম। তিনি বিকম পাস। তাঁর আছে ১৬টি ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান। এই ব্যবসায়ীর হাতে নগদ আছে ৮ লাখ ৭৫ হাজার ৭৫৩ টাকা। আতিকুল ইসলাম বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান, ব্যবস্থাপনা পরিচালক বা পরিচালক হওয়ার সুবাদে তিনটি বেসরকারি ব্যাংকে ৫৯১ কোটি ৬ লাখ ৬২ হাজার টাকা ঋণ নিয়েছেন। তাঁর নামে কোনো মামলা নেই।

অন্যদিকে, আয়, সম্পদ, ঋণ সবই বেড়েছে বিএনপির উত্তরের প্রার্থী ব্যবসায়ী তাবিথ আউয়াল। তিনি ইনফরমেশন সিস্টেমস টেকনোলজির ওপর এমএসসি ডিগ্রি নিয়েছেন। বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল আউয়াল মিন্টুর জ্যেষ্ঠ ছেলে তিনি। গত পাঁচ বছরে তাবিথের ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান, আয় ও সম্পদ বেড়েছে। বেড়েছে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের ঋণও।

এছাড়া, দক্ষিণের বিএনপির প্রার্থী ইশরাক হোসেন অবিভক্ত ঢাকার প্রয়াত মেয়র সাদেক হোসেন খোকার ছেলে। তিনি এমএসসি (ইঞ্জিনিয়ারিং) ডিগ্রিধারী এবং সাদেক ফাইন্যান্স ম্যানেজমেন্ট, বুড়িগঙ্গা ইক্যুইটি ম্যানেজমেন্ট, বুড়িগঙ্গা ইন্ডাস্ট্রিজ ও দিগন্ত প্রকৌশলী লিমিটেডের পরিচালক। ডাইনামিক স্টিল কমপ্লেক্সের অংশীদার এবং ট্রান্স ও শিয়ানিক ট্রেডিংয়ের স্বত্বাধিকারী তিনি। হলফনামা অনুসারে, বিভিন্ন উৎস থেকে ইশরাকের বার্ষিক আয় ৯১ লাখ ৫৮ হাজার ৫০৯ টাকা।—প্রথম আলো

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close