দেশবাংলা

প্রতিবাদ করলে মিথ্যে মামলার হুমকি

হবিগঞ্জের চুনারুঘাটে অবৈধভাবে চলছে সিলিকা বালু উত্তোলনের মহোৎসব। স্থানীয় প্রভাবশালীরা, ড্রেজার মেশিন বসিয়ে বালু উত্তোলন করে রাতারাতি হয়েছেন, কোটিপতি। বালু নেয়ার পরিবহনে রাস্তাঘাট ভেঙ্গে যাওয়ায় স্থানীয়রা প্রতিবাদ করলে, মিথ্যে মামলা দিয়ে জেলে ঢোকানোর হুমকী দেয়া হয়, এমন অভিযোগ, স্থানীয়দের।

এছাড়া স্থানীয় সংসদ সদস্য আইনী পদক্ষেপ নেয়ার নির্দেশ দিলেও, তা আমলে নিচ্ছে না জেলা প্রশাসন। বালু পরিবহনের কারনে, রাস্তাঘাট ও ফসলী জমি ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় দ্রুত এর প্রতিকার চান, স্থানীয়রা ।

হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার গাজীপুর ইউনিয়নের ইছালিয়া ছড়ার সিলিকা বালু কোয়ারীর ইজারা নেন, সুজাতুল হক ভুইয়া নামে স্থানীয় এক বিএনপি নেতা। কিন্তু সেখান থেকে বালু উত্তোলন না করে, পাশের মুরিছড়া থেকে ড্রেজার মেশিন বসিয়ে সিলিকা বালু উত্তোলন করছেন তিনি।

এছাড়া ইজারায় দেয়া শর্তাবলী অনুযায়ী অযান্ত্রিক পদ্ধতি, ড্রেজার ও এস্কেভেটর মেশিন ব্যবহার করে, সিলিকা বালু উত্তোলন করা যাবেনা। কিন্তু এ আইনের তোয়াক্কা না করে জারুলিয়া, গোবরখোলা, গাজীপুর চা বাগান, উচমানপুর ও দধপাতি এলাকার ভুমি থেকে, বালু উত্তোলন করছেন। এ বিষয়ে সংবাদ সংগ্রহ করতে গেলে সাংবাদিকদের বাঁধা দেয়া হয়।

স্থানীয় সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট মাহবুব আলী জানান, অবৈধ বালু উত্তোলন বন্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে ইতোমধ্যে জেলা প্রশাসনকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। প্রশাসনের কর্মকর্তারা এ ব্যাপারে ব্যর্থ হলে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এদিকে, সুনির্দিষ্ট অভিযোগ ও তথ্য পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানালেন, হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ কামরুল হাসান।

জেলায় ২৩টি সিলিকা বালুমহাল রয়েছে। এসব বালু বিভিন্ন স্থাপনা নির্মাণ ও বিভিন্ন সিরামিকের পণ্য তৈরীর কাজে ব্যবহৃত হয়। বালু খেকোদের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনাসহ আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে প্রশাসনের প্রতি দাবি জানিয়েছেন, উপজেলাবাসী।

মোতাব্বির হোসেন, চুনারুঘাট প্রতিনিধি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button